কলকাতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব উদ্বোধন, বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত ‘ব্রিগেড গ্রাউন্ডে’ যাচ্ছেন তথ্যমন্ত্রী

11
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্ক রিপোর্ট:
কলকাতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব দুই বাংলার নৈকট্য গভীর করতে আরো অবদান রাখবে বলেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত বাৎসরিক উদ্যোগের অংশ হিসেবে শুক্রবার বিকেলে কলকাতার নন্দন সিনেমা হলে ৫ থেকে ৯ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, চলচ্চিত্র মানুষের গভীর অনুভবকে স্পর্শ করে এবং মনে স্থায়ী ছাপ ফেলে। সে কারণে এটি মানুষে-মানুষে যোগাযোগ গড়ে তুলেতে অনন্য ভূমিকা রাখতে সক্ষম।

পশ্চিমবঙ্গের বিজ্ঞান প্রযুক্তি ও জৈবপ্রযুক্তি মন্ত্রী ও বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব ব্রাত্য বসু, ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ ইমরান, চলচ্চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ প্রমুখ কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনার তৌফিক হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাইমুম সারোয়ার কমল, বিএফডিসি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুজহাত ইয়াসমিন, কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের প্রথম সচিব-প্রেস মোফাখখারুল ইকবাল, চিত্রতারকা জয়া আহসান, সৃজিত প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী চলচ্চিত্র হিসেবে প্রদর্শিত হয় ‘হাসিনা: আ ডটারস টেল’।

এদিকে, শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে বঙ্গবন্ধুর দেয়া ভাষণের ৪৯ বছর পূর্তি উপলক্ষে সেখানে যাচ্ছেন তথ্যমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

১৯৭২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রায় দশ লাখ মানুষের সমাবেশে ভাষণ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণে ছিলো স্বাধীনতার আনন্দ, স্বজন হারানোর বেদনা, ভারতের প্রতি অকুণ্ঠ কৃতজ্ঞতা ও চিরঞ্জীব সম্প্রীতি আর স্বাধীনতা বিরোধীদের সমালোচনা।

এ বছর মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে তথ্য মন্ত্রণালয় ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সহায়তায় কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনকে সাথে নিয়ে ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে ৬ ফেব্রুয়ারি স্মরণে যে সভা আয়োজন করেছে, সেখানে প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রীর সাথে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দিচ্ছেন। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননাপ্রাপ্ত ভারতীয় গুণীজনদের সংবর্ধনা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে শুক্রবার দুপুরে কলকাতার একাডেমি অব ফাইন আর্টসে তথ্য মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ‌‌ব‌ঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শিরোনামে আয়োজিত দু’দেশের ২৬ জন চিত্রশিল্পীর ৬০টি চিত্রকর্মের প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। বাংলাদেশের চিত্রশিল্পীদের মধ্যে কিরীটি রঞ্জন বিশ্বাস ও জাকির হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের চলচ্চিত্র অধিশাখার যুগ্ম সচিব নজরুল ইসলাম, উপসচিব সাইফুল ইসলামসহ উর্ধতন কর্মকর্তারা তথ্যমন্ত্রীর সাথে রয়েছেন।