ডেঙ্গু: এবার ঈদযাত্রায় যানবাহনে ওষুধ স্প্রে করার তাগিদ

16
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা অব্যহত রয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, ডেঙ্গু জ্বর ছাড়াও বিভিন্ন মৌসুমী জ্বরের প্রকোপও চলছেই। তাই সব রোগীর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার প্রয়োজন নেই।

একইসঙ্গে এবারের ঈদযাত্রায় দেশের বিভিন্ন রুটে বাস-ট্রেন বা লঞ্চে যাত্রী পরিবহনের আগে যানবাহনে মশা না থাকা নিশ্চিত করার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

৭ বছরের ইফতি জেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এর আগে ইফতির মা কোহিনুর সুলতানাও জ্বরে আক্রান্ত হন। রক্ত পরীক্ষায় তার প্লাটিলেট এক লাখ ৭০ হাজার থাকার পর আতঙ্কিত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

জ্বর মানেই ডেঙ্গু এমন আতঙ্কে অনেক রোগীই হাসপাতালে ভিড় করছেন। এ বাস্তবতায় রাজধানীর সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ইর্ন্টানি চিকিৎসকরা প্রচারণা চালাতে রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যান। ডেঙ্গুর বাহক এডিশ মশার উৎপত্তি ও ডেঙ্গু জ্বরের লক্ষণ এবং কখন হাসপাতালে ভর্তি করা উচিত সে বিষয়েও শিক্ষার্থীদের সচেতনায় বিভিন্ন তথ্য দেন।

ইতোমধ্যে দেশের ৬৩টি জেলায় ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় ৫৬২ জন ভর্তিও হয়েছেন। বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১ হাজার ৫০৬ জন। এই বাস্তবতায় শ্রমিক ফেডারেশনের মাধ্যমে সকল পরিবহন মালিকদের বাস-ট্রেন-লঞ্চে যাত্রার আগেই মশা নিধনে স্প্রে করার পরামর্শ দেয়া হবে।

মেডিসিন চিকিৎসকরা বলছেন, জ্বর হলেই পরীক্ষা করে ডেঙ্গু কিনা তা নিশ্চিত হতে হবে। আর সব জ্বরের রোগীদের অযথা হাসপাতালে ভর্তির জন্য ভীড় না করে চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় থাকার আহ্বানও জানিয়েছেন তারা।