রাজসিক প্রত্যাবর্তন: ব্যাটে-বলে সেরা সাকিব

11
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্ক রিপোর্ট:
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাকিব আল হাসান ফিরলেন নবাবের মতোই। ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে পেয়েছেন সিরিজ সেরার পুরস্কার। নিজের ব্যাটিং-বোলিং নিয়ে তৃপ্তি থাকলেও, শেষ ম্যাচে পুরোটা সময় মাঠে না থাকা নিয়ে আছে আক্ষেপ। কুঁচকির ইনজুরির অবস্থা খুব একটা ভালো না বলে জানিয়েছেন সাকিব। আছেন ২৪ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে।

রাজসিক প্রত্যাবর্তন হয়তো একেই বলে। নিষেধাজ্ঞা শেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে, প্রথম অ্যাসাইনমেন্টেই হলেন সিরিজ সেরা। ১৬ মাস ছিলেন ক্রিকেটের বাইরে। কিন্তু ব্যাট-বলে মরচে ধরেনি।

বিশ্বকাপে অভাবনীয় পারফরম্যান্স। খর্ব শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেই সাকিবের কি দেখা মিলবে, এমন প্রশ্ন ছিল অনেকেরই। হয়তো সেই প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। তবে সাকিব যা করেছেন, তার ধারে কাছেও ছিলেন না অন্য কেউ। তাই তো উইন্ডিজ সিরিজের সেরার পুরস্কারটা শোভা পেয়েছে তার হাতেই।

ওয়ানডে খেলতে নেমেছিলেন দেড় বছর পর। যদিও মাঠে তার মধ্যে জড়তার ছিটেফোঁটাও দেখা যায়নি। উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তার স্পিনজালে ধরা দেন চার ব্যাটসম্যান। তবে ছিল ব্যাটে রান না পাওয়ার আক্ষেপ।

পরের ম্যাচে অবশ্য সেটাও আর থাকেনি। দুই উইকেট নেয়ার পর, রানও পেয়েছেন ব্যাটে। শেষ ওয়ানডেতে ফিফটি পেলেও, পাননি কোনো উইকেট। কুঁচকিতে চোট পাওয়ায়, নিজের বোলিং কোটা পূর্ণ করতে পারেননি। তাতে কিছুটা আক্ষেপ থাকলেও, নিজের পারফরম্যান্সে খুশি ওয়ানডের শীর্ষ অলরাউন্ডার।

সিরিজ সেরার পুরস্কার নেয়ার পর সাকিব আল হাসান বলেন, আমি খুবই হ্যাপি। লাস্ট ম্যাচে পুরো টাইম মাঠে থাকতে পারলে ভালো লাগতো। হতাশা এটুকুই। কিন্তু ব্যাটিং-বোলিং নিয়ে খুশি। যেভাবে ব্যাটিং করি সেভাবেই করতে পেরেছি। প্রতিদিন রান করা ডিফিকাল্ট। সেদিক দিয়ে হ্যাপি।

সাকিবের ক্যারিয়ারে অজস্র অর্জন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ সেরার পুরস্কার জিতে নিজের প্রোফাইলটা আরো সমৃদ্ধ করেছেন। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে সর্বোচ্চ সিরিজ সেরার পুরস্কারের তালিকাইয় সাকিব আছেন এখন তৃতীয় স্থানে। তাই মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে, বার বার তার এমন প্রত্যাবর্তনের চিত্রনাট্য কে লিখে?