মেসির লাল কার্ড; বিলবাও এর রোমাঞ্চকর জয়

7
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস নিউজ ডেস্কঃ
আঁতোয়া গ্রিজম্যানের জোড়া গোলে দুইবার এগিয়ে যাওয়ার পরও জিততে পারলো না বার্সেলোনা। রোমাঞ্চ ও নাটকীয়তায় ভরা স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে অতিরিক্ত সময়ের গোলে কাতালান জায়ান্টদের ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে অ্যাথলেতিক বিলবাও।

এদিকে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে ম্যাচে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়েছে লিওনেল মেসিকে। রেফারির শেষ বাঁশি বাজার অল্প আগে লাল কার্ড দেখেন তিনি।

মেজাজ হারিয়ে বিলবাওয়ের এক খেলোয়াড়ের সঙ্গে উগ্র আচরণ করে বসেন বার্সা অধিনায়ক। এই অভিযোগে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নিয়ে মেসিকে লাল কার্ড দেখানো হয়।

১৭ বছরের ক্লাব ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো এমন অভিজ্ঞতা হল আর্জেন্টাইন মহাতারকার। বার্সার হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৭৫৩তম ম্যাচটি খেললেন মেসি, আগে কখনওই লাল কার্ড দেখতে হয়নি তাকে। এর আগে ২০১৯ সালে কোপা আমেরিকার তৃতীয় স্থান নির্ধারণীতে চিলির বিপক্ষে ম্যাচে তাকে ‘বিতর্কিত’ লাল কার্ড দেখান ম্যাচ রেফারি। যেটি নিয়ে পরবর্তীতে বেশ সমালোচনাও শুরু হয়। ১৪ বছর পর সেদিন লাল কার্ড দেখতে হয় মেসিকে।

তার আগে বার্সার ফিকে হতে বসে নতুন বছরটা শিরোপা দিয়ে রাঙানোর স্বপ্ন। নির্ধারিত সময় শেষে অতিরিক্ত তৃতীয় মিনিটে তৃতীয় গোল হজম করে বসে রোনাল্ড কোম্যানের দল। সেই গোল আর শোধ করতে পারেনি তারা। রেফারির শেষ বাঁশি বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে তৃতীয়বারের মতো স্প্যানিশ সুপার কাপ জয়ের আনন্দে মেতে ওঠে বিলবাও। শেষবার তারা এই শিরোপা জিতেছে ২০১৫ সালে আর বার্সা জিতেছে ২০১৮ সালে।  

বিলবাওয়ের বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দলই নামিয়েছিলেন কোম্যান। ম্যাচের শুরু থেকেও আধিপত্য বিস্তার করেও খেলছিল বার্সা। সেই সুবাদে ৪০তম মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন গ্রিজম্যান। কিন্তু কাতালান জায়ান্টরা সেই ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি।  

গোল হজমের দুই মিনিট পর অস্কার দে মার্কোস সমতায় ফেরান বিলবাওকে। বিরতির পর ফের এগিয়ে যায় বার্সা। এবারও দলের গোলদাতা গ্রিজম্যান। জর্দি আলবার পাস থেকে ৭৭তম মিনিটে ব্যবধানটা ২-১ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।  

কিন্তু কে জানতো, ফুটবল ঈশ্বর ম্যাচের ভবিষ্যৎটা অন্যভাবে লিখে রেখেছেন! ব্যবধানটা ধরে রেখে যখন বার্সা শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে তখনই নাটকীয়তা শুরু। ইকার মুনিয়েনের পাস থেকে ৯০তম মিনিটে বিলবাওকে সমতায় ফিরিয়ে ম্যাচ অতিরিক্তি সময়ে নিয়ে যান বদলি হিসেবে নামা আসিয়ের ভিলালিব্রে।  

অতিরিক্ত সময়ের তৃতীয় মিনিটে তৃতীয় গোল হজম করে বসে বার্সা। ইনাকি উইলিয়ামসকে দিয়ে দলের জয়সূচক গোলটি করান মুনিয়েন। শেষ পযর্ন্ত আর সমতায় ফিরে ম্যাচটি টাইব্রেকারে নিয়ে যেতে পারেনি বার্সা। শিরোপা উৎসবে মেতে ওঠে সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ হারানো বিলবাও।