চীনের সিনোভ্যাক ভ্যাকসিন দিয়ে তুরস্কে গণ টিকাদান শুরু

21
Print Friendly, PDF & Email

ইউনাইটেড নিউজ অব বাংলাদেশ (ইউএনবি):
চীনের সিনোভ্যাক সংস্থার উৎপাদিত ভ্যাকসিনের মাধ্যমে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে গণ টিকাদান কার্যক্রম শুরু করেছে তুরস্ক।

তুর্কি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সারা দেশে ১০ লাখেরও বেশি স্বাস্থ্যকর্মীকে এ ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। পরে দেওয়া হবে নার্সিংহোমে বসবাসকারী বৃদ্ধদের।

ফেরিহা ওজেড ইমারজেন্সি হাসপাতালের প্রধান চিকিৎসক নুরেত্তিন ইয়ায়েত জানান, তুরস্কের বৃহত্তম শহর ইস্তাম্বুলের স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের টিকাদান দুই দিনের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য ২০২০ সালে নির্মিত বিশেষায়িত এ হাসপাতালে দ্রুততম উপায়ে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য টিকা দেওয়ার ৩০টি কক্ষ বরাদ্দ করা হয়েছে।

হাসপাতালের সব কক্ষে একযোগে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর ডা. নুরেত্তিন বার্তা সংস্থা সিনহুয়াকে বলেন, ‘আমরা প্রতিদিন সর্বাধিক এক হাজার ৮০০ জনকে ইনজেকশন করতে পারি।’

‘প্রয়োজনে এ সংখ্যা আরো বাড়ানো যেতে পারে,’ বলেন ডা. নুরেত্তিন।

ফেরিহা ওজেড ইমারজেন্সি হাসপাতালে অ্যানেস্থেটিস্ট হিসেবে কাজ করা হেল এরিসির অনলাইনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেওয়ার পর টিকা নিতে খুব সকালেই আসেন টিকাদান কেন্দ্রে।

হেল এরিসির ২০২০ সালের মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে তুরস্কে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই এ মহামারির বিরুদ্ধে সক্রিয়ভাবে লড়াই করে চলেছেন।

সবাই টিকা পাবেন এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে হেল এরিসি সিনহুয়াকে বলেন, ‘আমি সব সময় ভ্যাকসিনের ইতিবাচক প্রভাবগুলোতে বিশ্বাস করি এবং আমি নিশ্চিত যে এ কর্মসূচিটির মহামারি শেষ করার শক্তি রয়েছে।’

সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি একটি অনলাইন ব্যবস্থা এবং মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে তুরস্কের ৮১ প্রদেশে পরিচালিত হচ্ছে। প্রক্রিয়াটি ভ্যাকসিনের দীর্ঘ মেয়াদি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলোও শনাক্ত করতে পারে।

প্রয়োজনীয় সব সুরক্ষা সংক্রান্ত পরীক্ষা শেষে গত বুধবার তুরস্কের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সিনোভ্যাকের উৎপাদিত কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয়।

অনুমোদন পাওয়ার পর এক সরাসরি সম্প্রচারে ভ্যাকসিনের ডোজ নেন তুরস্কের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহেরেটিন কোচা এবং করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা বোর্ডের সদস্যরা।

জনগণকে টিকা গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে কোচা বলেন, ‘টিকাদান কার্যক্রমটি আমাদের সাধারণ ও পুরোনো জীবনযাত্রায় ফিরে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন।’

এর আগে ঘোষণা করা হয় যে সিনোভ্যাকের ভ্যাকসিন তুরস্কে ট্রায়ালের ক্ষেত্রে ৯১ দশমিক ২৫ শতাংশ কার্যকর ছিল।

ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীন থেকে ৩০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিনের প্রথম চালান পায় তুরস্ক।

সিনোভ্যাকের টিকা নিলেন এরদোয়ান:
সিনোভ্যাক বায়োটেকের তৈরি করোনা ভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। করোনার টিকা নিয়ে তুরস্কের জনগণকে আশ্বস্ত করতে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার টিভি ক্যামেরার সামনেই টিকা নেন তিনি। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এবং সংবাদমাধ্যম সিজিটিএনের প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এরদোয়ান করোনার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন আনকারা সিটি হসপিটালে। সেখানে তাঁর সঙ্গে ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেত্তিন কোচা। এর আগে গত বুধবার টিকা নেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

টিকা নেওয়ার পর হাসপাতালের বাইরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এরদোয়ান জানান, তিনি এবং তাঁর দল একে পার্টির সদস্যরা টিকা নিচ্ছেন। তিনি বাকি রাজনীতিকদেরও এই করোনার টিকার পক্ষে কথা বলার আহ্বান জানিয়েছেন।

এরদোয়ান বলেন, ‘প্রথম পর্যায়ে সব টিকার সরবরাহের কাজ সম্পন্ন। পরের পর্যায়ে আরো ২৫ থেকে ৩০ মিলিয়ন টিকার ডোজ আসবে। আমরা এই কাজটি দ্রুত চালিয়ে যেতে চাই।’ তিনি জানান, এখন থেকে পরবর্তী সময়ে যে টিকাগুলো তুরস্কে যাবে, সবই সিনোভ্যাকের তৈরি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেত্তিন কোচা জানান, যখন যার সময় আসবে সে হিসেবে সবাইকেই টিকা নিতে হবে।

এদিকে, তুরস্ক বৃহস্পতিবার থেকে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য চীনের সিনোভ্যাকের টিকাদান কার্যক্রম শুরু করেছে। এরই মধ্যে তুরস্কে দুই লাখ ৫০ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মীকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।