দ্বিতীয় ধাপে শনিবার ৬০টি পৌরসভায় ভোট

2
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
দ্বিতীয় ধাপে ৬০টি পৌরসভার মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ১৬টি পৌরসভায় অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন।

শনিবার দ্বিতীয় দফায় ৬০টি পৌরসভার ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় চার পৌরসভার মেয়রপদে ভোট হচ্ছে না। আর একজন মেয়রপ্রার্থী মারা যাওয়ায় নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এছাড়া ১৬টি পৌরসভাকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ চিহ্নিত করে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য।

সব প্রস্তুতি সম্পন্ন। কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনি সরঞ্জাম। ২১ লাখ ৪৬ হাজার তিনশত ৬৯ জন ভোটারের জন্য ঠিক করা হয়েছে এক হাজার ৫৯টি ভোট কেন্দ্র।

২রা ডিসেম্বর ৬১টি পৌরসভার তালিকা চূড়ান্ত করে নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করলেও বৃহস্পতিবার নীলফামারির সৈয়দপুর পৌরসভার একজন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মারা যাওয়ায় স্থগিত করা হয়েছে সেখানকার ভোট। ফলে শনিবার ভোট হচ্ছে ৬০ পৌরসভায়।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, নির্বাচনে খুব ভালো পরিবেশ বজায় আছে। কোথাও কোন উত্তেজনা নেই। এখন পর্যন্ত নির্বাচনের আচরণ বিধি ভেঙ্গেছে এমন কোন অভিযোগ পাইনি।

এদিকে, দিনাজপুর, মোহনগঞ্জ, কমলাগঞ্জ, কুলাউড়া, কিশোরগঞ্জ, কুলিয়াচর, সাভার, বসুরহাট, গোরুদাসপুর, খাগড়াছড়ি, মোংলাপোর্ট, মুক্তাগাছা, শেরপুর, সারিয়াকান্দি, সান্তাহার এবং ফুলবাড়িয়া পৌরসভাকে অতি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, যেসব জায়গা আমরা ঝুঁকিপূর্ণ মনে করেছি সেসব জায়গায় আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংখ্যা বাড়িয়েছি। সেখানে টহল এবং ম্যাজিস্ট্রেটের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। নির্বাচনের সময় যাতে কেউ কোন সমস্যা করলে সঙ্গে সঙ্গেই আইনের আওতায় আনা যায় তাই এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

৬০টি পৌরসভার মধ্যে ৩২টিতে ভোট হবে ব্যালটে আর ২৮ পৌরসভায় ভোটাভুটি হবে ইভিএম বা ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে।