হাসপাতাল ছুটি দিলেও বাড়ি যান নি সৌরভ

4
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস নিউজ ডেস্কঃ
গতকালই বিশেষ ফ্লাইটে করে কলকাতায় এসে বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠী সাবেক ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীকে দেখে বলেছিলেন, ‘সৌরভ এখন পুরোপুরি ফিট। চাইলে এখন ক্রিকেট খেলতে পারবেন, এমনকি ম্যারাথনে দৌড়াতেও পারবেন।

কারণ সৌরভের কোনো বড়সড় সমস্যা নেই। ওর যে সমস্যা রয়েছে সেটা অধিকাংশ ভারতীয়র কখনো না কখনো হয়ে থাকে। ’

এরপরই হাসাপাতাল কর্তৃপক্ষ বুধবার (৬ ডিসেম্বর) ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতিকে ডিসচার্জ করার সিদ্ধান্ত নেন।  

কিন্তু এখনই বাড়ি যেতে চাইছেন না সৌরভ। বরং নিজেই হাসপাতালে আরও একটা দিন কাটাতে চান দাদা। বুধবার তাই ছুটি দেওয়ার কথা থাকলেও, সৌরভের ইচ্ছাকে সম্মান দিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) ডিসচার্জ করার কথা জানিয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়ে দিয়েছেন, বাড়িতে গিয়ে পুরোপুরি বিশ্রামে থাকবেন তিনি। নিয়মিত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে তার শারীরিক চেক-আপ চলবে।

এদিন সৌরভের হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার কথা জেনে বাইরেই দাদার অনুগামীরা প্ল্যাকার্ড হাতে অপেক্ষা করছিল। ‘কামব্যাক দাদা’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে রীতিমত ভিড় জমে যায় হাসপাতালের বাইরে। তবে শেষ মুহূর্তে তাদের হতাশই হতে হয়।  

শনিবার (০২ জানুয়ারি) বেলা ১টায় বুকে ব্যথা নিয়ে আচমকা হাসপাতালে ভর্তি হন সৌরভ গাঙ্গুলী। তাকে দক্ষিণ কলকাতার বেসরকারি উডল্যান্ডস হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার শারীরিক ব্যাপারে বিস্তারিত খতিয়ে দেখে জানান ‘মাইল্ড কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট’ হয়েছে সৌরভের।  

ভর্তির সময় সৌরভের পালস ছিল মিনিটে ৭০ এবং প্রেসার ছিল ১৩০ বাই ৮০। ইকোকার্ডিওগ্রাম ও এনজিওগ্রাম করে তার ধমনিতে ব্লকেজ ধরা পড়ে। এরপর একটি ধমনীতে এনজিওপ্ল্যাস্টি করা হয় তার। একইদিন বিকেলে এনজিওপ্ল্যাস্টি হয় প্রিন্স অব ক্যালকাটার। বসানো হয় একটা স্টেন্ট। এরপর থেকে তিনি ক্রমে সুস্থ হয়ে উঠছেন।