ঘোষণা হলো জেমকন সাহিত্য পুরস্কার ২০২০

13
Print Friendly, PDF & Email

লিটারেচার ডেস্কঃ
জেমকন সাহিত্য পুরস্কার ২০২০ ঘোষণা করা হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে কোনো সাড়ম্বর আয়োজন নয়, ভিডিওবার্তায় পুরস্কারপ্রাপ্তদের নাম ঘোষণা করেছেন জেমকন গ্রুপের পরিচালক, প্রকাশক ও কথাসাহিত্যিক কাজী আনিস আহমেদ। শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকেল ৩টায় এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

এবার জেমকন তরুণ কবিতাপুরস্কার ২০২০ পেয়েছেন তরুণ কবি হাসনাইন হীরা; তাঁর ‘বাঁক বাচনের বৈঠা’ পাণ্ডুলিপির জন্য।

জেমকন তরুণ কথাসাহিত্যপুরস্কার ২০২০ যৌথভাবে পেয়েছেন জব্বার আল নাঈম তাঁর ‘জীবনের ছুটি নেই’ এবং ধ্রুপদী রিপন তাঁর ‘সম্পর্ক আপন-পর’ পাণ্ডুলিপির জন্য।

জেমকন সাহিত্যপুরস্কার ২০২০ পেয়েছেন ‘আগস্ট আবছায়া’ উপন্যাসের জন্য কথাসাহিত্যিক মাসরুর আরেফিন।

জেমকন সাহিত্যপুরস্কার ২০২০-এর সম্মানিত জুরি ছিলেন অধ্যাপক ড. বেগম আকতার কামাল, ওয়াসি আহমেদ, মামুন হুসাইন, সরিফা সালোয়া ডিনা, আহমাদ মোস্তফা কামাল।

জেমকন তরুণ কথাসাহিত্য পুরস্কার ২০২০-এর সম্মানিত জুরি ছিলেন কথাসাহিত্যিক পারভেজ হোসেন অনিরুদ্ধ কাহালি, মোস্তফা তারিকুল আহসান, হামীম কামরুল হক, আফসানা বেগম।

জেমকন তরুণ কবিতা পুরস্কার ২০২০-এর সম্মানিত জুরি ছিলেন কবি মোহাম্মদ সাদিক, আসাদ মান্নান, কবির হুমায়ূন, জফির সেতু ও মোস্তাক আহমেদ দীন।

জেমকন সাহিত্য পুরস্কার-২০২০ এর জন্য প্রথমে কবিতা, গল্প ও উপন্যাসের ২০১৯ সালের প্রকাশিত গ্রন্থ থেকে ১৫টি গ্রন্থ নিয়ে দীর্ঘ তালিকা প্রস্তুত করা হয়। দীর্ঘ তালিকা থেকে সংক্ষিপ্ত তালিকায় সাতটি গ্রন্থকে নির্বাচন করা হয়। সেখান থেকে সম্মানিত জুরিদের মধ্য থেকে একটি গ্রন্থকে ওই বছরের শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়।

২০০০ সালে জেমকন গ্রুপ এই পুরস্কার প্রবর্তন করে। বিশেষ করে তরুণ কবি ও কথাসাহিত্যিকদের উৎসাহ দেবার জন্য প্রথম পাণ্ডুলিপিকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। ২০২০ এসে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকাশিত বাংলাদেশের একটি সৃষ্টিশীল গ্রন্থকে পুরস্কৃত করা হয়। কুড়ি বছরের এই দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় এটিই একমাত্র পুরস্কার যার ধারাবাহিকতা অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

২০০৩ সাল থেকে প্রবর্তন করা হয় বছরের শ্রেষ্ঠ গ্রন্থকে পুরস্কৃত করা। যার নাম ‘জেমকন সাহিত্য পুরস্কার’ এ বছর এই পুরস্কারের ১৮তম পূর্তি। এ পর্যন্ত যারা সম্মানিত হয়েছেন তারা হলেন— মামুন হুসাইন (২০০৩), প্রয়াত লেখক শহীদুল জহির (২০০৪), সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম (২০০৬), সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক (২০০৭), প্রয়াত সেলিম আল দীন (২০০৮), নির্মলেন্দু গুণ (২০০৯), ওয়াসি আহমেদ (২০১০), পারভেজ হোসেন (২০১১), জাকির তালুকদার (২০১২), আহমাদ মোস্তফা কামাল (২০১৩), হাসান আজিজুল হক (২০১৪), সালমা বাণী (২০১৫), মঈনুল আহসান সাবের (২০১৬) ও মোহাম্মদ রফিক (২০১৭), প্রশান্ত মৃধা (২০১৮), শাহীন আখতার (২০১৯)।