ভ্যাকসিন নেয়ার পরও নতুন করে দুই শতাধিক ইসরাইলি করোনায় আক্রান্ত

7
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্ক:
ফাইজার-বায়োনটেকের কোভিড ভ্যাকসিন নেয়ার পর নতুন করে দুই শতাধিক ইসরাইলি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিভিন্ন সূত্রের বরাতে রুশ গণমাধ্যম আরটি এ তথ্য জানিয়েছে।

চ্যানেলে -১৩ এর তথ্যমতে, প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহুর দেশে টিকা নেয়া সত্বেও এ পর্যন্ত ২৪০ জন কোভিড সংক্রমিত হয়েছেন। ভ্যাকসিন নেয়ার কদিনের মধ্যেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হবে না, এমনটি বলছেন বিশেষজ্ঞরা। নিয়ম অনুযায়ী দুই ডোজ টিকা নিতে হবে।

ইনজেকশন নেওয়ার পর প্রায় এক হাজার লোকের মধ্যে হালকা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এর মধ্যে দুর্বলতা, মাথা ঘোরা এবং জ্বর আসা। ইনজেকশন দেয়ার স্থানে ব্যথা, ফোলাভাব এবং লাল হয়ে যায়। ইসরাইলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এদের মধ্যে কজনকে কিছুদিন চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলতে হবে।

এক সমীক্ষায় জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের এই ভ্যাকসিনে করোনার সংক্রমণ রোধে প্রথম ইনজেকশনের আট থেকে দশ দিন পর ইমিউনিটি বাড়তে থাকে। প্রথম ডোজে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত সংক্রমণের ঝুঁকি কমে যায়। এই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ ২১ দিনের মাথায় নেয়ার কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এর সাত দিন পর ৯৫ শতাংশ কোভিড রোধে কার্যকর বলেও দাবি বিশেষজ্ঞদের। যদিও ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নেয়ার পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৫ শতাংশ থেকে যায়।

এ বিষয়ে ইসরাইলি গণমাধ্যমে প্রকাশিত বেশ কয়েকটি পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, কোভিড-টিকা নেয়ার ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে সতর্ক হতে হবে। ভ্যাকসিনের প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার পর কোভিড-১৯ এর নিয়ম কানুন মেনে চলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

গেল বছরের ২০ ডিসেম্বর ইহুদি রাষ্ট্রটিতে গণহারে করোনা টিকাদান কর্মসূচিটি চালু করেছেন প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু। ইতিমধ্যে এক লাখ মানুষকে জরুরিভিত্তিতে ফাইজারের ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হয়েছে। যা দেশটির জনসংখ্যার ১২ শতাংশ মানুষ। অক্সফোর্ডের টিকাও দ্রুত ইসরাইলের পৌঁছে যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা।