সেমিফাইনালের আশা টিকিয়ে রাখা ম্যাচে মুস্তাফিজ নৈপুন্যে বাংলাদেশ

নিউজ বি | স্পোর্টস ডেস্ক

25
Print Friendly, PDF & Email

চলছে ভারত আর বাংলাদেশের মধ্যকার খেলা। সেমিফাইনালের খাতায় নিজেদের নাম লিখিয়ে ফেলেছে ভারত কিন্তু বাংলাদেশ রয়েছে এখনো অংকের হিসেবে। আজকের ম্যাচ এবং আগামী ম্যাচে জয়লাভ করতে পারলেই কেবল মাত্র সেমিফাইনালের টিকেট ধরা দিতে পারে টাইগারদের হাতে।

টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। শুরুতেই রোহিত শর্মার ক্যাচ ফেলে দিয়ে বাংলাদেশ শিবিরে আশংকার মেঘ জমা হতে থাকে। আর তামিমের হাতে একবার জীবন পেয়ে রোহিত শর্মা যেন ফুলে ফেপে উঠেন। ৯২ বল খেলে ১০৪ রানের ইনিংস গড়েন এই ব্যাটসম্যান। অপরপ্রান্তে রাহুল করেন ৭৭রান। ১৮০ রানের বিশাল পার্টনারশিপ বাংলাদেশ কে শুরুতেই যেন ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়ার ইংগিত দিচ্ছিলো।

তারপর বোলিং এ পরিবর্তন এনে বল তুলে দেয়া হয় সৌম্য সরকারের হাতে। রোহিত শর্মাকে ব্যক্তিগত ১০৪ রানের মাথায় আউট করে প্রান ফিরিয়ে আনেন টিম টাইগারদের মনে। এরপর ১৯৫ রানের মাথায় রাহুল কে ফিরান রুবেল হোসেন। উইকেটে তখন ভিরাট কোহলি এবং রিশাভ। স্বাভাবিক ভাবেই রক্তচাপ বেড়ে যাবার ই কথা কিন্তু মুস্তাফিজ সেই আচ্ছন্ন দুঃশ্চিন্তা থেকে মুক্তি দেন বাংলাদেশ শিবির কে ভিরাট কোহলির উইকেটের মাধ্যমে। ব্যক্তিগত ২৬ রানের মাথায় ফিরান এই মারকুটে ব্যাটসম্যান কে। অন্য প্রান্তে রিশাভ তখন দূর্দান্ত ফর্মে ব্যাট চালাচ্ছিলেন। ৪১ বলে ৪৮ রানের মাথায় যখন দাঁড়িয়ে তখন সাকিবের আক্রমনের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান।

তারপর অবশ্য খুব বেশী চাপে পড়তে হয়নি বাংলাদেশ কে। ভারতের দলীয় রান তখন ২৭৭। তারপর কুল ক্যাপ্টেন খ্যাত ধনী দলের হাল ধরেন। ৪টি বাউন্ডারিতে ৩৩ বলে করে ৩৫ রান। দলীয় সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ৩১১রানে। ভুবনেশ্বর কুমার এবং সামি মিলে দলীয় সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ৩১৪রানে।

৯উইকেট হারিয়ে ভারতের সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ৩১৪ রানে। ৩১৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে কিছুক্ষন পর ব্যাটীং এ নামবে টিম টাইগার।

বোলিং পার্শে মুস্তাফিজ ১০ ওভারে ৫৯রান দিয়ে ৫টি উইকেট তুলে নিয়েছেন, অন্যদিকে সাকিব আল হাসানের সংগ্রহ ১০ওভার ৪১ রান ১ উইকেট। রুবেল ও সৌম্য সরকার পেয়েছেন ১টি করে উইকেট।

শুরুতে ভারত ওপেনিং জুটিতে রানের পাহাড় গড়লেও, বাংলাদেশী বোলার দের নৈপুন্যে স্থিতিশীলতায় শেষ হয় প্রথম ইনিংস। আর এইখানে মুস্তাফিজের স্পেল দেখে বলাই যায় বাঁচা মরার ম্যাচে মুস্তাফিজ নৈপুন্যে এখনো পর্যন্ত এগিয়ে বাংলাদেশ টিম।