কিছু না, বাংলাদেশ আগে দুই ম্যাচ জিতুক

18
Print Friendly, PDF & Email

নিউজবি২৪ অনলাইন স্পোর্টসঃ
কোর্টনি ওয়ালশ রোববার সকালে দলের সঙ্গে অনুশীলনে যাওয়ার আগে টিম হোটেলের হায়াত রিজেন্সির সামনের চত্বরে এসে বলছিলেন—‘আমি নিশ্চিত, আমাদের সবার চোখ ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচের দিকে আছে।’

এই ম্যাচে ইংল্যান্ডের হার দেখার জন্যই অপেক্ষায় ছিল বাংলাদেশ, পাকিস্তান এমনকি সেমিফাইনালের রাস্তায় থাকার ক্ষীণতর স্বপ্ন দেখা শ্রীলঙ্কাও। এজবাস্টনে ইংল্যান্ড যদি হারতো তাহলে সামনের সময়টায় এই বিশ্বকাপে এশিয়ার বাকি তিন দেশের বেশ উপকার হতো।

মজার বিষয় হলো, ইংল্যান্ড হারবে নাকি জিতবে সেটা নিয়ন্ত্রণের কোনো উপায় এই তিন দেশেরই নেই। নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এখন আশপাশে থাকা অন্যে যেন নিয়ন্ত্রণ হারায়—সেই অপেক্ষায় থাকা বা সেই অমঙ্গল চাওয়াটা খুব আস্থাশীল কোনো ব্যাখাই হতে পারে না!

তাই অন্য দলের মন্দ ভাগ্য কামনার চেয়ে নিজের ভাগ্য যাতে আরো উন্নততর করা যায়—সেই চিন্তা নিয়েই থাকছে বাংলাদেশও।

হিসেবটা পরিষ্কার—গ্রুপ পর্যায়ে এখন বাংলাদেশ দলের দুটো ম্যাচ বাকি আছে। প্রথম শর্তই হলো এই দুটো ম্যাচ বাংলাদেশকে জিততেই হবে। সেই শর্ত শতভাগ পূরণ করার পর বাকি যে সময় মিলবে, তখন রেসে থাকা অন্য কারো মন্দ ভাগ্য কামনার জন্য চাইলে বাংলাদেশি সমর্থক হিসেবে ঝাঁকফুঁক দিতেই পারেন আপনিও!

তবে প্রথম শর্ত হলো ২ জুলাই এজবাস্টনে ভারত এবং ৫ জুলাই লর্ডসে পাকিস্তানকে আগে হারাতে হবে। এই শর্ত পুরো করতে না পারলে অন্যের মন্দ ভাগ্য কামনা করে নিজের স্বাস্থ্য ফিরবে না!

সেমি-ফাইনালে নাম লেখানোর বিধি-বিধানটা এমন। পয়েন্টের শীর্ষে থাকা দল শেষ চারে খেলবে। পয়েন্ট সমান হলে তখন দেখা হবে কে বেশি সংখ্যক ম্যাচ জিতেছে। সেই হিসেবও যদি সমান হয় তখন রানরেটের হিসেবে যে এগিয়ে থাকবে তারাই তালিকার উপরে থাকবে। কাকতালীয়ভাবে রানরেটও যদি সমান হয়ে যায় তবেই আসবে গ্রুপ পর্যায়ে মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসেব। এই মুখোমুখি লড়াইয়ে জয়ী দলই পয়েন্ট তালিকার উপরের স্থানে থাকবে।

সার্বিক হিসেব বিবেচনায় আনলে সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গী হিসেবে ভারত, নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডই শীর্ষ সম্ভাবনার তালিকায়। এজবাস্টনে রোববারে ইংল্যান্ডের জয়ে শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপ দুই ম্যাচ আগেই শেষ!

এই দুঃখ থেকেই শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট সাংবাদিক লিখলেন—‘ওয়ার্নার বহন করছেন অস্ট্রেলিয়াকে। বেয়ারস্টো বহন করছেন ইংল্যান্ডকে। রোহিত শর্মা বহন করছেন ভারতকে। আর শ্রীলঙ্কাকে বহন করছে এমিরেটস!’

দেশে ফেরার জন্য বিমানের টিকিট অনেক আগেই কনফার্ম করে ফেলেছে আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

তবে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান এখনো এই বিশ্বকাপে যা বহন করছে তার নাম—আশা!