হৃতিক রোশন

57

জন্মঃ  জানুয়ারি ১০, ১৯৭৪
মুম্বই, মহারাষ্ট্র, ভারত
বাসস্থানঃ  মুম্বই
জাতীয়তাঃ  ভারতীয়
নাগরিকত্বঃ  ভারতীয়
পেশাঃ  অভিনেতা, মডেল
কার্যকালঃ  
১৯৮০–১৯৮৬ (শিশু অভিনেতা)
২০০০–বর্তমান
আদি শহরঃ  মুম্বই
ধর্মঃ  হিন্দুধর্ম
দাম্পত্য সঙ্গীঃ
সুজান খান ( ডিভোর্স )
সন্তানঃ ২
পিতা-মাতাঃ 
রাকেশ রোশন
পিঙ্কি রোশন


হৃতিক রোশনঃ
তিনি একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা যিনি বহুমুখি ধারার অভিনয় এবং নৈতিক কাজের জন্যেও পরিচিত। রোশন ছয় বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছেন এবং বলিউডের সর্বোচ্চ আয়কারী ও সর্বাধিক একজন সম্মানিত অভিনেতা হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।
১৯৮০ সালে শিশু শিল্পী হিসেবে চলচ্চিত্রে পদার্পনের পর, ঋত্বিক রোশন ২০০০ সালে ব্লক বাস্টার কহো না পেয়ার হ্যায় চলচ্চিত্রের মূল চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে সূচনা করেন। তিনি তার কোই… মিল গেয়া (২০০৩), ক্রিশ (২০০৬), এবং ধুম ২ (২০০৬) এর মত বাণিজ্যিক ভাবে সফল চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য বেশি পরিচিত এবং যার জন্য তিনি বেশ কয়েকটি শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার লাভ করেন। ঋত্বিক প্রখ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেতা রাকেশ রোশনের পুত্র।


ঋত্বিকের অদ্ভুত অজানা কিছু তথ্যঃ
দুনিয়া জুড়ে অসংখ্য দর্শকের হৃদয়ে জায়গা করে নেয়া বলিউডের ‘কৃষ’ খ্যাত তারকা ও সুপার হিরো ঋত্বিক রোশন। একজন সাইড ড্যান্সার হিসেবে মাত্র ৬ বছর বয়সে ঋত্বিক তার জীবনের প্রথম ‘আশা’ নামের একটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। কিন্তু তা হয়তো আমাদের অনেকেরই অজানা। আমরা ধরেই নিয়েছিলাম যে, ঋত্বিক রোশন অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র হয়তো ‘কাহনা পেয়ার হে’। এবার জানুন ঋত্বিকের আরও অজানা কিছু তথ্য যা এতো দিন আপনার জানা ছিল না।

১। ছোটবেলায় তোতলামির রোগ ছিল ঋত্বিক রোশনের। পরবর্তীতে অনেক চিকিৎসার পর তিনি ভালোভাবে কথা বলতে সক্ষম হনন।
২। ঋত্বিক নিজে স্বীকার করেন যে টিনএইজ বয়সে নায়িকা মধুবালা এবং পারভিন বেবির প্রেমে পড়েছিলেন।
৩। মাত্র ২১ বছর বয়সে মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হন এই তারকা এবং চিকিৎসকরা জানান তিনি আর কখনোই নাচতে পারবেন না। কিন্তু সবাইকে ভুল প্রমাণ করেন ঋত্বিক।
৪। এক সময়ের চেইন স্মোকার ঋত্বিক রোশনের ধূমপান ছাড়তে সাহায্য করে ‘হাউ টু স্টপ স্মকিং’ বইটি। তিনি তার ধূমপায়ী সব বন্ধুদের এই বই উপহার দিতেন যেন তারাও ঋত্বিকের মতো ধূমপান ত্যাগ করতে পারেন।
৫। ঋত্বিক রোশন স্কুল জীবন কাটে বোম্বে স্কটিশ স্কুলে এবং বি.কম পাশ করেন সিডেনহাম কলেজ থেকে। অভিষেক বচ্চন এবং কারিনা কাপুরের সাথে একই বছর বলিউডে অভিষেক ঘটে এই তারকার।
৬। ছোটবাচ্চাদের মতো স্ক্র্যাপবুক তৈরি করতে বেশ পছন্দ করেন ঋত্বিক রোশন। একটি স্ক্র্যাপবুক সবসময়ই ঋত্বিকের সাথে থাকে এবং তিনি তার দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত ক্যামেরায়বন্দী করে স্ক্র্যাপবুকটিতে তুলে রাখেন।
৭। পুরো বলিউড জগতে ঋত্বিকের একমাত্র কাছের বন্ধুটি হচ্ছেন উদয় চোপড়া। স্কুল জীবন থেকেই এই দুই তারকার মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।
৮। টাকা-পয়সার ব্যাপারে এখনও পুরোপুরি অদক্ষ ৪০ বছর বয়সী এই তারকা। টাকা-পয়াসার হিসাব নিকাশের কাজটি পুরোপুরি মা এবং সাবেক স্ত্রী সুজানকেই করতে হয়।
৯। উদয় এবং ঋত্বিকের মধ্যে এতটাই গভীর বন্ধুত্ব ছিল যে ছোটবেলা থেকেই একই স্কুল, একই জায়গায় কম্পিউটার শিখতে এবং ক্যারাটে প্রশিক্ষণেও যেতেন এই দুই তারকা।
১০। সঙ্গীতশিল্পী হবার স্বপ্ন দেখা ঋত্বিক নায়ক হয়ে গেলেও সুযোগ বুঝে গায়কির প্রদর্শন করেছেন ঠিকই। ‘কাইটস’ এবং ‘জিন্দেগী না মিলেঙ্গে দোবারা’ সিনেমাতে গানে কণ্ঠ দেন এই তারকা।
১১। ২০০০ সালের বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে ঋত্বিক জানান ভক্তদের কাছ থেকে এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ৩০ হাজার বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন।
১২। ‘কাহনা পেয়ার হে’ ছবিটি ঋত্বিকের আগে বলিউড বাদশা শাহরুখ খানকে অফার করা হয়। এবং প্রধান চরিত্রটি শাহরুখ খানের পছন্দ না হলে পরবর্তীতে ঋত্বিক রোশনকে নেয়া হয়।
১৪। চলচ্চিত্র জগতে নায়ক হিসেবে পদার্পণ করার পূর্বে বাবা রাকেশ রোশনের সহকারীর দায়িত্ব পালন করেন। তবে সেটে একজন স্পটবয়ের কাজ হিসেবে মেঝে পরিষ্কার এবং অভিনেতা-অভিনেত্রীদের চা পরিবেশনের কাজও করতে হয়েছে এই তারকাকে।