মহাদুর্যোগ মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ হোন-বিএনপি’কে তথ্যমন্ত্রী

33
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বিএনপি’র উদ্দেশে বলেছেন, ‘দায়িত্বহীন বিদ্বেষপূর্ণ কথাবার্তা বলার সময় এটি নয়। এখন সময় হচ্ছে, সমস্ত দলমত নির্বিশেষে সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে করোনা’র মহাদুর্যোগ থেকে দেশকে, দেশের মানুষকে, জাতিকে রক্ষা করা।’

রোববার রাজধানীতে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে বিএনপি নেতৃবৃন্দের সাম্প্রতিক মন্তব্য প্রসঙ্গে তিনি একথা বলেন। তথ্য সচিব কামরুন নাহার এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশ-জাতি, পৃথিবী যখন এমন একটি মহাদুর্যোগের ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে, তখন আমরা দেখতে পাচ্ছি যে কিছু কিছু দায়িত্বহীন বিদ্বেষপূর্ণ কথাবার্তা বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে। যেমন গতকাল রিজভী সাহেব বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ করোনার চেয়েও ভয়ঙ্কর’। এর ক’দিন আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছিলেন, ‘আওয়ামী লীগ করোনায় আক্রান্ত’। এ ধরণের দায়িত্বহীন বিদ্বেষপূর্ণ কথাবার্তা বলার সময় এটি নয়। এখন রাজনীতি করার সময় নয়। এখন সময় হচ্ছে সমস্ত দলমত নির্বিশেষে সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশকে দেশের মানুষকে জাতিকে রক্ষা করা।’

‘অনেকে টেলিভিশনে টক’শোতে গিয়েও নানাধরণের কথা বলছেন, আমি সবাইকে বিনীতভাবে অনুরোধ জানাবো, আসুন আমরা সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে জনগণের পাশে দাঁড়াই’ বলেন ড. হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার চেষ্টা করছে এবং সরকারকে কোনো পরামর্শ থাকলে অবশ্যই দিতে পারেন। সরকার কোন জায়গায় যদি ভুলও করে, সেটিও বলতে পারেন। কিন্তু এ সময় রাজনীতি করার সময় এটি নয়। আসুন সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা এই মহাদুর্যোগ থেকে দেশকে, জাতিকে, মানুষকে রক্ষা করি।’

তথ্য মন্ত্রণালয়ে ‘করোনা সচেতনতা সেল’:
এ সময় তথ্য মন্ত্রণালয়ে ‘করোনা সচেতনতা সেল’ গঠনের কথা জানান তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, প্লেগের পর পৃথিবীতে এতবড় দুর্যোগ আর আগে আসেনি। প্লেগে কয়েক কোটি মানুষ মারা গিয়েছিল। আর নভেল করোনায় ইতিমধ্যে তিন লক্ষের মতো মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে। এটি একটি বৈশ্বিক দুর্যোগ। আমরা যে যার অবস্থান থেকে চেষ্টা করছি, এই দুর্যোগের হাত থেকে দেশ-জাতি-রাষ্ট্রকে রক্ষা করার জন্য। তারই প্রেক্ষিতে জনগণকে সচেতন করার জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়ের কিছু দায়িত্ব রয়েছে। সেই দায়িত্ববোধ থেকে আমরা জনসচেতনতার জন্য সেল গঠন করতে যাচ্ছি। সেখানে টেলিভিশন, বেতার, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর, তথ্য অধিদফতরসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি থাকবে। প্রজ্ঞাপন জারি করার পর এই ‘সেল’ মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে এবং করোনা প্রতিরোধে গঠিত টাস্কফোর্সের সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে।’

এর আগে থেকেই তথ্য মন্ত্রণালয় দেশের বিশিষ্ট গুণীশিল্পী, মিডিয়া ও চিত্রজগতের ব্যক্তিদের নিয়ে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক ফিলার তৈরি করে বিটিভি’র মাধ্যমে প্রচার করে আসছে ও অন্যান্য টিভি’তে পাঠানোর পর অনেকেই প্রচার করেছেন, জানান মন্ত্রী।

নির্বাচন কমিশনকে তথ্যমন্ত্রীর ধন্যবাদ:
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনসহ কয়েকটি উপনির্বাচন স্থগিত করার জন্য নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। আমি যতটুকু জানি গতকাল যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেটিও স্থগিত করা নিয়ে নির্বাচন কমিশন চিন্তাভাবনা করেছে। কিন্তু নির্বাচনের একদিন আগে সমস্ত প্রস্তুতি যখন শেষ, শেষ মুহূর্তে তারা সেটি করতে পারেনি। গতকাল যে নির্বাচন হয়েছে, নির্বাচন কমিশন বলেছে, সেটি ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্যই তাদের নির্বাচন করতে হয়েছে।’

‘করোনা’র কারণে ঢাকায় ভোটার উপস্থিতি কম হবে আমরা সেটি ধারণা করেছিলাম উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ইভিএমে যে সুষ্ঠুভাবে ভোট হয়, একজনের ভোট যে আরেকজনে দিতে পারেনা, সেটিও আবার প্রমাণ হয়েছে। যারা গেছেন তারাই শুধু ভোট দিতে পেরেছেন, ইভিএম পদ্ধতিতে একজনের ভোট অন্য কেউ ভোট দিতে পারেননি।’

বিএনপি’র ফলাফল প্রত্যাখ্যান নিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘নির্বাচন শেষ হওয়ার এবং ফলাফল ঘোষণার আগেই বিএনপির প্রার্থী ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি শুরু থেকেই ফলাও করে অভিযোগ উপস্থাপন করছিলেন এবং গতকাল চিরাচরিত নিয়ম অনুযায়ী বিএনপির প্রার্থী ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছেন। তারা সবসময় যেটি করে আসে, সেই ধারাবাহিকতাতেই সেটি তিনি করেছেন।’