টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ হতে চায় বাংলাদেশ

11
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্ক রিপোর্ট:
২০২৩ থেকে ২০৩১ সময়ের মধ্যে আয়োজনের অপেক্ষায় থাকা চারটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের থেকে বাংলাদেশ কোনো একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চায়। বাংলাদেশ স্বাগতিক দেশ হতে চায় আইসিসির দুটি বড় ইভেন্টের। এর জন্যে বিডিং প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বিসিবি লিখিত আবেদন করেছে আইসিসির কাছে।

বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট এর স্বাগতিক দেশ হওয়ার ক্ষেত্রে ক্রিকেটের পরাশক্তি দেশগুলো ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায়। ২০২৩ থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত আট বছরে আইসিসি যে বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের স্লট তৈরি করেছে, তাতে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে দুটি করে। এই চারটি টুর্নামেন্টের স্লট নিয়েই বেশি আগ্রহ দেশগুলোর।

এইসব স্লট নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড- বিসিবি চিন্তা করছে একটু ভিন্ন ভাবে। বিসিবির কর্মকর্তারা পরিকল্পনা সাজিয়েছে- ওয়ানডে বিশ্বকাপ নয়, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দিকেই এগোবে বাংলাদেশ। ক্রিকেটের বড় দেশগুলো ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজনের দিকেই যাবে, তাই বাংলাদেশ আয়োজন করতে চায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। ২০২৪ ও ২০২৮ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ।

দৈনিক সংবাদপত্র সমকালের আজকের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এমন তথ্য। বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিজাম উদ্দিন চৌধুরি জানান,

‘আমরা চেষ্টা করবো দুটি বড় ইভেন্ট পেতে। আমরা ওয়ানডে বিশ্বকাপের দিকে ঝুঁকব না। কারণ ওয়ানডে বিশ্বকাপ করতে হলে অন্তত ১০টি ভেন্যু লাগে। ওই পরিমাণ অবকাঠামো আমাদের নেই।’

আইসিসির বেঁধে দেওয়া নিয়মানুযায়ী বিসিবি প্রথমে লিখিত আবেদন করেছে। এরপর আবেদন করা প্রতিটি দেশকে প্রেজেন্টেশন করার জন্য ৬ মাস সময় পাবে। এরপর হলো বরাদ্দ প্রক্রিয়া।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ যৌথ ও ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের একক স্বাগতিক দেশ ছিলো বাংলাদেশ।