গোটা বিশ্বের অর্থনীতিকেই নাড়িয়ে দিচ্ছে করোনা ভাইরাস!

11
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্কঃ
করোনা ভাইরাস শুধু স্বাস্থ্য ঝুঁকি নয়, গোটা বিশ্বের অর্থনীতিকেই নাড়িয়ে দিচ্ছে। এই ভাইরাসের কারণে আর্থিক মন্দার কবলে পড়তে যাচ্ছে বিশ্ব। যার প্রভাব দেখা যাচ্ছে বিশ্ব পুঁজিবাজারেও। ঋণ খেলাপি হয়ে যাওয়ার আশংকায় রয়েছে বড় বড় প্রতিষ্ঠান। প্রতিদিনই ধস নামছে প্রধান সব শেয়ার বাজারগুলোতে।

করোনার থাবা এবার বিশ্ব বাণিজ্যে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শেয়ারবাজারে ভয়াবহ দরপতন চলছে। দিন দিন পতনের মাত্রাও বাড়ছে। পুঁজিবাজারে লেনদেন হওয়া প্রায় সব কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। সেই সঙ্গে কমেছে আর্থিক ও শেয়ার লেনদেন।

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে নিজেদের বিচ্ছিন্ন করে ফেলছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। বন্ধ হয়ে যাচ্ছে স্টেডিয়ামের খেলা থেকে শুরু করে বড় বড় সব বৈশ্বিক আয়োজন। স্কুল, কলেজ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখায় কমে আসছে অর্থনৈতিক কর্মকা-। ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞার কারণে লোকসানে পড়েছে বিশ্বের এয়ারলাইন্সগুলো।

ঋণ খেলাপি হয়ে যাওয়ার আশংকায় রয়েছে বড় বড় প্রতিষ্ঠান। প্রতিদিনই ধ্বস নামছে প্রধান সব শেয়ার বাজারগুলোতে। যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, হংকং, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়াসহ বিশ্বের প্রায় অধিকাংশ দেশে বড় পতন ঘটছে। ভারতের শেয়ার বাজারেও হয়েছে বড় ধরণের দরপতন।

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় এশিয়ার অর্থনীতি রীতিমতো ঝুঁকির মুখে। পর্যটন শিল্পের পাশাপাশি এই ভাইরাসের জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে চীন থেকে আমদানি-রপ্তানি। ফলে অর্থনীতিতে পড়েছে নেতিবাচক প্রভাব।

ইনস্টিটিউট অফ ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স এর প্রতিবেদনে, ২০১৯ সালের শেষের দিকে নন ব্যাংকিং করপোরেট ঋণ ৭৫ ট্রিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছিলো যা ২০০৯ সালে ৪৮ ট্রিলিয়ন ডলার ছিলো। তবে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, করোনা ভাইরাসের কারণে এ বছর ঋণাত্মক প্রবৃদ্ধি দেখা দেবে। চলতি বছর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ২০১৯ সালের চেয়ে অর্ধেক কমে যাবে বলে জানিয়েছে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর অর্থনৈতিক সংগঠন ওইসিডি।

করোনর প্রভাবে বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে। কল-কারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থা অব্যাহত থাকলে বড় ধরনের লোকসান গুণতে হবে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে। ফলে আর্থিক বাজারগুলো অস্থিতিশীল হয়ে অর্থনৈতিক সংকট আরো জটিল হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা বিশ্লেষকদের।