মানবিক কারণে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই: কাদের

13
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
পরিবারের আবেদনে বা মানবিক কারণে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, পরিবার বা দলের নেতাদের কথায় দণ্ডিত আসামি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে না। চিকিৎসকরা তার চিকিৎসার প্রয়োজনে কোনও সুপারিশ করলেই কেবল তা বিবেচনাযোগ্য। আর যেহেতু মানবিক কারণ বা চিকিৎসার জন্য তার জামিন আবেদন আদালত একাধিকবার নাকচ করে দিয়েছে, তাই পরিবারের আবেদনে বা মানবিক কারণে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার সুযোগ নেই।

মঙ্গলবার (১০ মার্চ) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় সাম্প্রতিক সময়ে মহামারি আকার ধারণ করা করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, তবে করণীয় আছে।

তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলায় সরকার প্রস্তুত। এ ভাইরাস প্রতিরোধে সব ধরনের সতর্কতা ও প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে অনুযায়ী রাজধানী ঢাকার সব হাসপাতালে প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। জেলা-উপজেলার হাসপাতালগুলোও প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি বলেন, করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, তবে করণীয় আছে। তা হলো সতর্ক থাকা, যেখানে সেখানে ময়লা না ফেলা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

মুজিববর্ষের কর্মসূচি পুনর্বিন্যাস প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, জনস্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে জনসমাগম এড়াতে মুজিববর্ষের কর্মসূচি পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে। বিদেশি অতিথিরা আসবেন না বলে যারা এ নিয়ে রাজনীতি করছেন তা সঠিক নয়। মুজিববর্ষের কর্মসূচি পুনর্বিন্যাস করায় কোনো রাজনীতি নেই। আছে জনকল্যাণের চিন্তা।

তিনি জানান, এদিন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধন করা হবে। সেদিন সকালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হবে। দলীয় ও জাতীয় পতাকা ওড়ানো হবে। দেশের সব ধর্মীয় উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হবে। গরিব ও দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হবে। দেশের সব গণমাধ্যমে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে। আর রাত ৮টায় বঙ্গবন্ধুর জন্মক্ষণে একযোগে সারাদেশে আতশবাজি ফোটানো হবে। এছাড়া পুরো মুজিববর্ষে দলের পক্ষে বৃক্ষরোপণ এবং গৃহহীনদের ঘর দেওয়া হবে।

সড়ক পরিবহনমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে জানান, আগামী ১২ মার্চ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যাত্রাবাড়ী-ভাঙ্গা এক্সপ্রেস হাইওয়ে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।