পরিস্থিতি সামাল দিতেই বিচারক বদলি: আইনমন্ত্রী

16
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
পিরোজপুরে সাবেক সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল ও তার স্ত্রীর জামিন নামঞ্জুরের পরে বিচারক প্রত্যাহারের ঘটনায় আইনমন্ত্রীর ব্যাখ্যা।
পিরোজপুরে বিচারকের অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণে আদলতে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি হয়েছিল। আর তা সামাল দিতেই জেলা জজ আব্দুল মান্নানকে তাৎক্ষণিক বদলি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে এ কথা জানান আইনমন্ত্রী।

তিনি আরও জানান, গতকাল থেকে আমরা এ পর্যন্ত যে তথ্য পেয়েছি তাতে জেনেছি পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ এবং তার স্ত্রী পিরোজপুর আদালতে জামিন জন্য যান। সেখানে আইনজীবীদের সঙ্গে জেলা জজ অশালীন ও রূঢ় ব্যবহার করেছেন। সে পরিস্থিতিতে বারের সবাই আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। তাই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আইন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে তাকে তাৎক্ষণিক বদলি (স্ট্যান্ড রিলিজ) করা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার (৩রা মার্চ) দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা তিন মামলায় পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক মো. আবদুল মান্নান। ওই আদেশের ঘণ্টাখানেক পর বিচারক জেলা জজ আবদুল মান্নানকে তাৎক্ষণিক বদলি (স্ট্যান্ড রিলিজ) করা হয়।

জেলা জজ আব্দুল মান্নানকে তাৎক্ষণিক বদলির পর দ্বিতীয় যুগ্ম জেলা জজ আদালতের বিচারক নাহিদ নাসরিনের আদালতে জামিন বাতিলের আদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন জানানো হলে বিচারক জামিন মঞ্জুর করেন।