লিটন দাসের শতক পূর্ণ

17
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্ক রিপোর্ট:
সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে’তে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্ত্তজা। বাংলাদেশ সময় দুপুর একটায় মাঠে গড়ায় ম্যাচটি। এই রিপোর্ট লেখা অবধি বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩৪ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮২ রান। উইকেটে আছেন লিটন দাস (১০৫)।

পাওয়ার প্লে’তে দুই টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল এবং লিটন দাস সাবধানী সূচনা করেন। প্রথম দশ ওভারে উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৪৪ রান। এরপর কিছুটা হাত খুলে খেলতে থাকেন তামিম। তবে ইনিংসের ১৩তম ওভারের ৪র্থ বলে ওয়েসলি এনদলোভুর বলে এলবিডাব্লিউ’র শিকার হয়ে ফিরতে হয় তামিমকে। অবশ্য এর আগে ১২তম ওভারের শেষ বলে কার্ল মুম্বার বলেও এলবিডাব্লিয়ের আবেদন উঠেছিল তামিমের বিপক্ষে। তবে আম্পায়ার নট আউট বললে রিভিউ নেয়নি জিম্বাবুয়ে। পরবর্তীতে রিপ্লে’তে দেখা যায় নিশ্চিত আউট থেকেই বেঁচে গেলেন তামিম। দলীয় ৬০ রানে আউট হওয়ার আগে তামিম ৪৩ বল খেলে ২টি চারে করেন ২৪ রান।

তামিম ফিরলে উইকেটে আসেন নাজমুল হোসেন শান্ত। লিটন দাসের সঙ্গে গড়লেন ৮০ রানের ঝড়ো জুটি। তবে দলীয় ১৪০ রানে ইনিংসের ২৬তম ওভারের ৪র্থ বলে টিনোটেন্ডা মুতোমবোদজি শিকার হয়ে ফেরেন শান্ত। আউট হওয়ার আগে নামের পাশে এক চার দুই ছয়ে ৩৮ বলে ২৯ রান যোগ করেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

ইনিংসের ৩৩তম ওভারের প্রথম বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে শতক পূর্ণ করেন লিটন দাস। এটি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার প্রথম শতক এবং ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় শতক তুলে নেন এই ওপেনার। শতক তুলে নিতে লিটন খেলেন মাত্র ৯৫টি বল।

সিলেটে খেলা এর আগের একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ২০২০ সালে টি-টোয়েন্টি এবং টেস্ট খেললেও এটিই বাংলাদেশের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচ। এই ম্যাচ দিয়ে দীর্ঘ সাত মাস পর জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নেমেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্ত্তজা।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মাশরাফি বিন মুর্ত্তজা (অধিনায়ক), মেহেদি হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে দল: চামু চিবাবা (অধিনায়ক), তিনাশি কামুনহুকামুয়ে, ব্রেন্ডন টেইলর, সিকান্দার রাজা, রেগিস চাকাবাহ, রিচামন্ড মুতোমবোদজি, টিনোটেন্ডা মুতোমবোদজি, ডোনাল্ড তিরিপানো, ওয়েসলি এনদলোভু, ক্রিস এমমফু এবং কার্ল মুম্বা।