সততার সঙ্গে কাজ করতে ফোনে ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

18
Print Friendly, PDF & Email

স্পেশাল করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
ছাত্রলীগের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোনও লক্ষ্য সামনে রেখে সততা ও দৃঢ়তার সঙ্গে কাজ করলে যে কোনও অসাধ্য সাধন করা সম্ভব। মানুষের জন্য কাজ করতে হবে, নিজের জন্য নয়। পরিবার-পরিজনের পর দেশের মানুষের প্রতি কর্তব্য পালন উচিত। একজন রাজনৈতিক নেতা হিসেবে এটা কর্তব্য।

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ‘লিডারশিপ ওরিয়েন্টশন’ অনুষ্ঠানে ফোনে ছাত্রলীগের উদ্দেশে এ সব কথা বলেন তিনি।

প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার কারণে স্কুল থেকে ঝরে পড়া শিশুদের দায়িত্ব নিয়ে শিক্ষার প্রসার ঘটাতে ছাত্রলীগের অগ্রণী ভূমিকা রাখার আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী।

ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় জানান, ছাত্রলীগের লিডারশিপ ওরিয়েন্টেশন ছিল শুক্রবার। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা এই অনুষ্ঠানটি হাতে নিয়েছি।

বিকাল পাঁচটায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করেন। প্রধানমন্ত্রী ফোন রিসিভ করে লাউড স্পিকারে তিনি আমাদের বিভিন্ন সাংগঠনিক দিক-নির্দেশনা দেন।

জয় জানান, ছাত্রলীগকে সঠিক পথে চলার নিদের্শনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনেক বড় স্বপ্ন, লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে ছাত্রলীগ গঠন করেন। এই ছাত্রলীগের সঠিক ইতিহাস জাতির কাছে তুলে ধরতে হবে।

দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বসহ সকল গণতান্ত্রিক অর্জনে ছাত্রলীগের ভূমিকার কথা প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরেন। তিনি ছাত্রলীগের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীকে ভালভাবে লেখাপড়া করার পরামর্শ দেন। বলেন, সুন্দর আচরণের মাধ্যমে মানুষের মন জয় করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর নীতি ও আদর্শ বুকে ধারণ করে চলার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

বঙ্গবন্ধুর লেখা দুটি বই ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’সহ গোয়েন্দা রিপোর্টের সকল বই পড়ারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

জয় জানান, মুজিববর্ষ উদযাপনের বিষয়েও ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী পরামর্শ দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

ছাত্রলীগ গঠনে বঙ্গবন্ধুর অবদান ও জাতির পিতার অনুপস্থিতিতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রলীগকে কিভাবে পরিচালনা করেছেন তা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রলীগের মাধ্যমেই সব তথ্য সংগ্রহ করতেন এবং জেলখানায় তিনি জাতির পিতার কাছে তা পৌছে দিতেন।