মুস্তাফিজদের দাপুটে জয়

5
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস করসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) সিলেট থান্ডারকে সাত উইকেটে হারিয়েছে রংপুর রেঞ্জার্স। আগে ব্যাটিং করে রংপুরকে ১৩৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে করেছে সিলেট। ডেলপোর্টের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৬ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রংপুর।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দ্বিতীয় ওভারেই ফিরে যান রংপুর দলপতি শেন ওয়াটসন। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে এই অস্ট্রেলিয়ানকে বোল্ড করেন এবাদত হোসেন।

ওয়াটসন দ্রুত ফিরলে ইনিংস মেরামতের কাজ বেশ ভালোভাবেই করেন নাঈম শেখ এবং ক্যামেরন ডেলপোর্ট। আগ্রাসী ক্রিকেটে ২৩ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান ডেলপোর্ট।

ডেলপোর্ট-নাঈম মিলে ৯৯ রানের জুটি গড়েন। তবে হাফ সেঞ্চুরি করে বেশীক্ষণ টিকতে পারেননি ডেলপোর্ট। নাভিন উল হকের বলে ফেরার আগে ছয়টি চার ও পাঁচটি ছক্কায় ২৮ বলে ৬৩ রান করেন তিনি। 

এরপর লুইস গ্রেগরি (৪) দ্রুত ফিরে গেলেও রংপুরকে জেতাতে কষ্ট হয়নি মোহাম্মদ নবি ও নাঈমের। শুরু থেকে রয়ে সয়ে খেলতে থাকা নাঈম করেন ৪৯ বলে ৩৮* রান। নবির ব্যাটে আসে ১২ বলে ১৮* রান।

এর আগে মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিং করতে নামা সিলেটের ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই ফিরেছেন আন্দ্রে ফ্লেচার (০)। এবারের বিপিএলে সেঞ্চুরি হাঁকানো এই ব্যাটসম্যান আরাফাত সানির বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যামেরন ডেলপোর্টকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান।

এরপর চতুর্থ ওভারে ফিরে যান সিলেটের আরেক ক্যারিবিয়ান রিক্রুট জনসন চার্লস। মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধর বলে মোহাম্মদ নবিকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান চার্লস।

দুই ওপেনার ফেরার পর ৫৭ রানের জুটি গড়েন মোহাম্মদ মিঠুন এবং মোসাদ্দেক হোসেন। এই জুটিতে অবদান বেশি মিঠুনের। ২৩ বলে ১৫ রান করে তাঁকে সঙ্গ দেন মোসাদ্দেক। কিন্তু নাঈম শেখের থ্রো’তে রানআউট হতে হয় তাঁকে।

দেখেশুনে খেলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মিঠুন। তাঁকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন শারফেন রাদারফোর্ডও। নয় বলে ১৬ রান করে লুইস গ্রেগরির বলে ফিরে যান তিনি। ব্যর্থতার মিছিলে যোগ দেন নাজমুল হোসেন মিলনও (১)।

একপাশ আগলে রেখে খেলতে থাকা মোসাদ্দেককে ফেরান মুস্তাফিজুর রহমান। আরাফাত সানির দারুণ ক্যাচে বিদায় নেন মিঠুন। ৪৭ বলে দুটি ছক্কা এবং চারটি চারে ৬২ রান করেন তিনি। শেষ ওভারে আরও দুটি উইকেট নেন মুস্তাফিজ।

আসরে এটি রংপুরের দ্বিতীয় জয়। প্লে অফে টিকে থাকার লড়াইয়ে এখনো রইলো রংপুর।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
সিলেট থান্ডারঃ ১৩৩/৯ (২০ ওভার)
(মিঠুন ৬২, রাডারফোর্ড ১৬; মুস্তাফিজ ৩/১০)
রংপুর রেঞ্জার্সঃ  ১৩৪/৩ (১৭.২ ওভার)
(ডেলপোর্ট ৬৩, নাঈম ৩৮*; নাভিন ২/১৩)