বিতর্কিত প্রার্থীদের মনোনয়ন দেয়া হবে না: কাদের

13
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের আসন্ন নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে কোনো বিতর্কিত প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) নারায়ণগঞ্জের ভোগরা-জয়দেবপুর-মদনপুর (ঢাকা-বাইপাস) সড়কে ছয় লেন বিশিষ্ট এক্সপ্রেসওয়ে সড়কের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা জানান তিনি।
ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই সিটিতে মেয়র পদে বিজয়ী হতে পারবেন এমন জনপ্রিয় প্রার্থীকেই দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হবে।

তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে বিভিন্ন সংস্থা ও তার নিজস্ব টিম দিয়ে প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা সম্পর্কে জরিপ করে জনমত যাচাই করেছেন। ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে করতে নির্বাচন কমিশনকে সরকারের পক্ষ থেকে সব প্রকার সহায়তা করা হবে। সরকার এবং সরকারি দল এ দুই সিটি নির্বাচনে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না বলেও আশ্বস্ত করেন কাদের।

এক্সপ্রেসওয়ে সড়কের নির্মাণ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ঢাকা এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই শেষ হবে। পিপিপির আওতায় ঢাকা বাইপাস সড়কের নির্মাণকাজ আগামী তিন বছরের মধ্যেই শেষ হবে।

তিনি বলেন, এ প্রকল্পটির নির্মাণ কাজে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। এর মধ্যে ২২৩ কোটি টাকা অর্থ মন্ত্রণালয় অনুদান হিসেবে বরাদ্দ দেবে। বাকি টাকা পিপিপির আওতায় চুক্তিবদ্ধ বিদেশি দু’টি কোম্পানি বহন করবে। জমি অধিগ্রহণ ও সার্ভিস চার্জ হিসেবে সড়ক ও জনপথ বিভাগ পাঁচশত কোটি টাকা ব্যয় করবেন। বাকি ৩ হাজার ২৭৬ কোটি টাকা বেসরকারি বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করবেন।

২০২২ সালের মধ্যে ঢাকা-বাইপাস সড়কের ৬ লেন বিশিষ্ট এক্সপ্রেস সড়ক নির্মাণ কাজ শেষ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী জাওয়াদ আলম, এক্সপ্রেসওয়ের প্রকল্প পরিচালক সবুজ উদ্দিন খান, চীনের রাষ্ট্রদূত এইচ ই লি জিমিংসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।