উইজডেনের দশক সেরা ক্রিকেটারদের তালিকায় সাকিব

9
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্ক রিপোর্টঃ
শেষ হয়ে যাচ্ছে আরও একটি দশক। ২০০৯ সাল থেকে শুরু করে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই দশ বছরে উত্থান পতন অনেক ঘটনা ঘটেছে ক্রিকেটে। উত্থিত হয়েছে নতুন ক্রিকেট সম্রাটের, ব্যাট হাতে ছড়িয়ে ঘোরানোর সঙ্গে সঙ্গে বল হাতে বিধ্বংসী হতে দেখা গেছে অনেক গতি তারকাকে। আর বল হাতে ঘূর্ণি জাদুতেও মোহিত করতে দেখা গেছে অনেক স্পিনারকে। এবার এই দশকের সেরা ক্রিকেটারদের নিয়ে একাদশ ঘোষণা করল উইজডেন। যেখানে একমাত্র ক্রিকেটার এবং অলরাউন্ডার হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন সাকিব আল হাসান।

উইজডেনের এই তালিকায় সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন বিরাট কোহলি। আর সেরা একাদশে কোহলি সঙ্গে আছেন আরও দুই ভারতীয়। এছাড়া অস্ট্রেলিয়া থেকে আছেন দুই ক্রিকেটার, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে জায়গা পেয়েছেন দুইজন, আর একজন করে জায়গা করে নিয়েছেন ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ থেকে। তবে দশকের সেরা একাদশে জায়গা হয়নি পাকিস্তান এবং ওয়েস ইন্ডিজের কোনো ক্রিকেটারের।

সাকিব

একনজরে উইজডেনের সেরা ওয়ানডে একাদশ: ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া), রোহিত শর্মা (ভারত), বিরাট কোহলি (ভারত), এবিডি ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা), জশ বাটলার (ইংল্যান্ড), সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ), মহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত), লাসিথ মালিঙ্গা (শ্রীলঙ্কা), মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া), ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড) এবং ডেল স্টেইন ( দক্ষিণ আফ্রিকা)।

রোহিত শর্মা: উইজডেনের বর্ষসেরা একাদশের ওপেনার হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন ভারতের নিয়মিত ওপেনার রোহিত শর্মা। এই দশকে রোহিত শর্মা খেলেছেন ১৭৯টি ওয়ানডে ম্যাচ। যেখানে সারা বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ছিলেন তিনি। ওয়ানডে’তে ৫৩.৫০ গড়ে নামের পাশে যোগ করেছেন ৮১৮৬ রান। যেখানে ভারতীয় তো বটেই, ক্রিকেটের ইতিহাসের এক ইনিংসের সর্বোচ্চ ২৬৪ রানের মহাকাব্যিক এক ইনিংসও খেলেছেন তিনি।

ডেভিড ওয়ার্নার: রোহিত শর্মার সঙ্গী উইজডেনের দশকের অপর সেরা ওপেনার নির্বাচিত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার। চলতি দশকে খেলা ১০৯ ওয়ানডে ম্যাচে ৪৭.৮৮ গড়ে নামের পাশে রান যোগ করেছেন ৪৮৮৪। আর তাই তো রোহিতের সঙ্গী হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন ওয়ার্নারই।

ওয়ার্নারের

বিরাট কোহলি: ব্যাটিং পজিশন হিসেবে তিন নম্বরে জায়গাটা কে পাবেন সেটি আগে থেকেই অনুমিত ছিল। এই পজিশনে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির থেকে সেরা পারফর্মার কাগজে কলমে ছিলেন না কেউই। এই দশকে খেলা বিরাট কোহলি থেকে সেরা ব্যাটসম্যান নির্বাচন করা সম্ভব নয়। কারণ? ব্যাট হাতে তার সমতুল্য পারফরম্যান্স করতে দেখা যায়নি কাউকেই। এই দশে ২২৬টি ওডিআই ম্যাচ খেলা কোহলি নামের পাশে যুক্ত করেছেন ১১ হাজার ৪০ রান। যেখানে ছিল ৪২টি শতক আর ৬০.৬৫ গড়ে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ছিল ১৮৩ রানের। শতক হাঁকানোর দিক দিয়ে কোহলি কেবল পিছিয়ে আছেন কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকারের থেকে।

কোহলি

এবি ডি ভিলিয়ার্স: চলতি দশকের শেষ দিকে ছিলেন দল থেকে বাইরে। দলে থাকলে হয়ত ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভবনা ছিল অনেক ব্যাটসম্যানকেই। তবে যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন ভিলিয়ার্স তাতেই নিশ্চিত সেরা একাদশের জায়গা। এই দশকে খেলা ১৩৫ ওয়ানডে’তে ৬৪.২০ গড়ে এবি করেছেন ৬৪৮৫ রান।

জশ বাটলার: চলতি দশকে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জশ বাটলার। ১৪২ ওয়ানডে খেলা এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান করেছেন ৩৮৪৩ রান। সেই সাথে জায়গা করে নিয়েছেন উইজডেনের সেরা একাদশে।

সাকিব আল হাসান: উইজডেনের দশক সেরা স্কোয়াডে পূর্ণতা আনেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের ক্রিকেটের জান বাংলাদেশি এই অলরাউন্ডার দশক সেরা স্কোয়াডে এক মাত্র অলরাউন্ডার হিসেবে নিজের জায়গা করে নেন। গেলো বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স এবং সেই সাথে স্পিনারদের মধ্যে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করায় তার স্থান হয় দশক সেরা স্কোয়াডে। এই দশকে খেলা ১৩১ ওয়ানডে ম্যাচ সাকিব আল হাসান সংগ্রহ করেছেন ৪২৭৬ রান, যেখানে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান ছিল ১২৪ আর ব্যাটিং গড় ছিল ৩৮.৮৭। কেবল ব্যাট হাতেই নয়, বল হাতেও নিজের নামের প্রতি সুবিচার করেছেন সাকিব। বল হাতে ১৭৭ উইকেট নিয়েছেন সাকিব, যেখানে বোলিং গড় ছিল ৩০.১৫ আর সেরা বোলিং ফিগার ছিল ২৯ রানে ৫ উইকেট।

মহেন্দ্র সিং ধোনি: একদশের উইকেট কিপারের অভাব পূরণে দলে ঢুকানো হয় ভারতের উইকেটরক্ষক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। চলতি দশকে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স তাকে স্কোয়াডে জায়গা করে দেয়। উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে ১৭০ টি ক্যাচের পাশাপাশি ৭২ টি স্ট্যাম্পিং করেছেন চলতি দশকে এই উইকেট কিপার।

লাসিথ মালিঙ্গা: লংকান এই বোলার দলে ঠাই পান তার বিধ্বংসী বোলিংয়ের জন্য। ৬/৩৮ সেরা বোলিং ফিগারে নিয়েছেন চলতি দশকে ২৪৮ উইকেট। সেই সাথে যোগ হয়েছে ২০১১ সালে করা দুই হ্যাট্রিক।

মিচেল স্টার্ক: বল হাতে অজি পেসার মিচেল স্টার্কের এগিয়ে আসা। এই আগানোই অনেক ব্যাটসম্যানের ভীত নড়বরে করে দেয়। ২০.৯৯ গড়ে গেলো ১০ বছরে খেলেছেন ৮৫ ওয়ানডে, নিয়েছেন ১৭২ উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার চলতি দশকের তার ৬/২৮।

ট্রেন্ট বোল্ট: কিউই এই বোলার উপরের দুই জনের চেয়েও বেশি তাণ্ডবলীলা চালাতে সমর্থ। যে কোনো সময় যে কোনো ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে সক্ষম বোল্ট। আর সে জন্যই দলে স্থান পেয়েছেন তিনি। তার দশকের বোলিং পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, ৮৯ ওয়ানডে খেলে ২৫.০৬ গড়ে উইকেট নিয়েছেন ১৬৪ টি। যেখানে রয়েছে এক ম্যাচে ৩৪ রানে ৭ উইকেট নেবার ঘটনাও।

ডেল স্টেইন: শেষ দশকের সেরা ওয়ানডে একাদশ নির্বাচন হবে আর সেই তালিকায় দক্ষিণ আফ্রিকার গতি তারকা ডেল স্টেইন থাকবেন না এমনটা অকল্পনীয়। শেষ দশ বছরে নিজের গতিতে ব্যাটসম্যানদের ভীত করে রেখেছেন স্টেইন। আর তাই তো উইজডেনের সেরা একাদশে সুযোগ মিলতে একটুও অপেক্ষা করতে হয়নি স্টেইনগানকে। প্রোটিয়াদের হয়ে শেষ দশ বছরে খেলেছেন ৯০টি ওয়ানডে ম্যাচ যেখানে নামের পাশে যুক্ত করেছেন ১৪৫টি উইকেট। মাত্র ২৪.৮০ গড়ে বল করা স্টেইনের শেষ দশ বছরের মধ্যে সেরা বোলিং ফিগার মাত্র ৩৯ রানের বিনিময়ে ছয়টি উইকেট।