সিরিয়ায় বিমান হামলায় নিহত ২২

9
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্কঃ
সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় ইদলিব প্রদেশে ভয়াবহ বিমান হামলায় ৯ শিশুসহ অন্তত ২২ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। রাশিয়ার সমর্থনে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাহিনী নিয়মিতই এমন হামলা চালাচ্ছে। বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোতে কার্যক্রম পরিচালনাকারী দাতব্য সংস্থার বরাতে এ খবর জানিয়েছে আলজাজিরা।

দ্য সিরিয়ান ডিফেন্স মূলত হোয়াইট হেলমেট নামে পরিচিত একটি দাতব্য সংস্থা বলছে, মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) ইদলিব প্রদেশের মারেত আল নুমান জেলার ছোট শহর এবং গ্রাম লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়।

হোয়াইট হেলমেটের মুখপাত্র আহমেদ শেইখো আলজাজিরাকে বলেন, সরকারি বাহিনীর হামলায় তাল মানিস শহরে ৯ জন, বিদামাতে ৬ জন এবং মাসারান শহরে আরও পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আল কানায়েসে একজন এবং মার শামশাহতেও একজন নিহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

হোয়াইট হেলমেটের মুখপাত্র আরও জানান, বিদামা শহরের হামলায় যারা প্রাণ হারিয়েছেন তাদের মধ্যে হোয়াইট হেলমেটের এক স্বেচ্ছাসেবীর স্ত্রী ও তিন সন্তানও রয়েছে। কালকের হামলায় আরও অনেকেই আহত হয়েছেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে আহতদের উদ্ধার ও চিকিৎসা দেয়ার কাজ চলছে বলেও জানান তিনি।

সিভিল ডিফেন্সের মুখপাত্র আহমেদ শেইখো বলেন, হামলায় তাল মান্নিস শহরে নয়জন, বিদামায় ছয়জন, মাসারানে পাঁচজন এবং আল-কানায়াস ও মার শামশাহ এলাকায় নিহত হয়েছেন একজন করে মোট দু’জন।

হামলায় আহত হয়েছেন আরও কয়েক ডজন মানুষ। বেশ কিছু স্থাপনাও ধ্বংস হয়েছে। সেসব ধ্বংসাবশেষে মঙ্গলবার রাতেও চলছিল উদ্ধার কার্যক্রম।

ইতোমধ্যে বিমান হামলার বেশ কিছু ভিডিও সামাজিক মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে। এসব ভিডিওতে উদ্ধারকর্মীদের মাসারান শহরের ধ্বংসাবশেষ থেকে আগুনে পোড়া মরদেহ টেনে বের করতে দেখা গেছে।

হোয়াইট হেমলেট নামে পরিচিত সংস্থাটি আরও জানায়, ইদলিবে ভয়াবহ ওই বিমান হামলা শুরু হয়েছিল মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টায়। সারাদিন ধরে হামলা চলে। হামলার মুখে শহর ও গ্রামগুলো থেকে বহু মানুষকে পালিয়ে যেতে দেখা গেছে।