‘রাজাকারের তালিকা কেন’ প্রশ্ন করে বিএনপি আবারো রাজাকারের পক্ষ নিলো: তথ্যমন্ত্রী

14

স্টাফ করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাসান মাহমুদ বলেছেন, ‘রাজাকারের তালিকা কেন- এ প্রশ্ন করে বিএনপি আবারো রাজাকারের পক্ষ নিয়েছে এবং নিজেদের মুখোশই উন্মোচন করেছে।’

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের প্রচার উপ-কমিটির সভার পূর্বে ‘স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর রাজাকারের তালিকা কেন’? বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এ মন্তব্যের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ সব কথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, ‘মীর্জা ফখরুল সাহেব তার এ বক্তব্যের মধ্যেদিয়ে রাজাকারদের পক্ষই নিয়েছেন। আমরা এতদিন ধরে বলে আসছি, বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং তাদের দলের চেয়ারপারসন পাকিস্তানিদের দোসর ছিলেন। এবং তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানও মুক্তিযোদ্ধার ছদ্মাবরণে পাকিস্তানের গুপ্তচর হিসেবে কাজ করেছেন। আজ রাজাকারের তালিকা প্রকাশের পর মীর্জা ফখরুল সাহেব কেন তালিকা প্রকাশ হলো- এ প্রশ্ন রেখে রাজাকারদের পক্ষ অবলম্বন করে নিজেদের মুখোশই উন্মোচন করেছেন।’

‘কারণ রাজাকারের তালিকা প্রকাশের পর দেখা যাচ্ছে, রাজাকারদের যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে, তারা বিএনপি ও তাদের সহযোগী এবং সেজন্যই এ তালিকা প্রকাশে তাদের এত গাত্রদাহ’, বলেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক।

এ সময় ‘তালিকায় কিছু ভুল রয়েছে’ বলে সাংবাদিকরা মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘কিছু ভুল রয়েছে, যা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী নিজেও বলেছেন এবং ভুলগুলো অবশ্যই শুধরে নেবার সুযোগ আছে। তবে এ ভুলগুলো কেন হলো, কিভাবে হলো, প্রশাসনের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা কেউ করেছে কি না, তা অনুসন্ধান করে বের করা হবে।’

আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে এ দিনের প্রচার উপ-কমিটির সভা সম্পর্কে দলের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন ‘জাতীয় সম্মেলনের তথ্যাদি council.albd.org ওয়েবসাইটে সন্নিবেশিত রয়েছে। এ সম্মেলন সামনে রেখে প্রচার উপ-কমিটির প্রত্যেক সদস্য আন্তরিক কাজের মাধ্যমে যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে, তা সম্পন্ন হয়ে এসেছে। প্রত্যেক ডেলিগেটের জন্য যে পাটের ব্যাগ দেয়া হবে, সেখানে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি-বক্তৃতার কপিসহ ফোল্ডার, লাল-সবুজ ক্যাপ, পানির বোতল এবং ডায়াবেটিকদের দিকে লক্ষ্য রেখে দু’টি লজেন্সও থাকবে।

‘এছাড়া, ২০১৩-১৪-১৫ সালে বিএনপি জনগণের ওপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যাসহ যে নজীরবিহীন সন্ত্রাস পরিচালনা করেছে এবং নানা গুজব ছড়িয়ে মানুষের মাঝে ভীতিসঞ্চারের ষড়যন্ত্র করেছে, সেগুলোর ওপরও একটি তথ্যচিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করেছে আওয়ামী লীগ প্রচার উপ-কমিটি’, বলেও জানান মন্ত্রী।

‘আওয়ামী লীগকে মাতৃস্নেহ-মমতায় নেতৃত্ব দিয়ে চারবার দেশ পরিচালনায় নিয়ে যাওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্মের ওপর একটি এ্যালবাম, দলের সম্মেলন উপলক্ষে ২০ ডিসেম্বর জাতীয় দৈনিকগুলোতে ক্রোড়পত্র এবং গত সাড়ে দশ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ গড়ার পথে অদম্য গতির উন্নয়নের একটি তুলনামূলক বিবরণী সম্বলিত পকেট-কার্ড প্রকাশ করা হবে’ জানান ড. হাছান।

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও প্রচার এবং প্রকাশনা উপ-কমিটির সভাপতি এইচ টি ইমাম এ সময় বলেন, ‘অত্যন্ত কর্মতৎপর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি দলের জন্য অনন্য ভূমিকা রেখে চলেছে। সকল গণমাধ্যম আমাদের সাথে থাকবেন বলে আমরা আশা করি।’

প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের মৃত্যুতে শোক:
এইচ টি ইমাম ও ড. হাছান মাহমুদ উভয়েই তাদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, বীর বিক্রম এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন।

প্রচার উপ-কমিটির পক্ষ থেকে এদিন সন্ধ্যায় সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী জয়নুল আবেদীনের আত্মার শান্তি কামনা ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।