রাসেলকে অধিনায়ক হিসেবে পেয়ে রোমাঞ্চিত আফিফ

10
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস করসপন্ডেন্টঃ
৮ বছর পর এসএ গেমসে ক্রিকেট যুক্ত হয়েছিল এবার, সবশেষ ২০১০ সালের আসরের ক্রিকেটেও সোনা জিতেছিল মোহাম্মদ মিঠুনের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ। এবার নেপালে অনুষ্ঠিত ১৩ তম এসএ গেমসেও সোনা জিতেছে নাজমুল হোসেন শান্তের বাংলাদেশ দল। এবারের আসরে ক্রিকেটে বাংলাদেশ অর্জন করেছে আরও একটি মাইলফলক, প্রথমবার অংশ নিয়েই এসএ গেমসে মেয়েদের ক্রিকেট ইভেন্টে সোনা জিতে নারী ক্রিকেট দলও।

এসএ গেমসে সোনা জয়ের সাফল্য শেষে একদিন আগেই দেশে ফিরে ছেলেদের দল। অবশ্য দেশে ফিরেও বিশ্রামের ফুসরত মিলছেনা আফিফ, শান্ত, সৌম্যদের। আজ (১১ ডিসেম্বর) থেকে যে শুরু হয়েছে বঙ্গবন্ধু বিপিএল। রাজশাহী রয়্যালসের হয়ে খেলবেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। এসএ গেমসে দেশকে সাফল্য এনে দিতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবানদের একজন বলছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার।

মিরপুরে আজ অনুশীলন শেষে ২০ বছর বয়সী এই তরুণ জানান, ‘এটা আমাদের সবার জন্য বড় একটি অর্জন। প্রথমেই আমরা ভেবেছিলাম যে এটা যদি অর্জন করতে পারি তাহলে আমরা অনেক খুশি হবো। সবাই খুব খুশি অর্জন করতে পেরে। দেশের জন্য ভালো কিছু করাটা সবসময় আসে না। আমাদের জীবনে এই মুহূর্ত এসেছে। তো আমরা অনেক ভাগ্যবান যে সফলভাবে ফিরে আসতে পেরেছি।’

ভারত, পাকিস্তান দল পাঠায়নি শক্ত প্রতিপক্ষ বলতে কেবল লঙ্কানরাই ছিল সৌম্যদের সামনে বাঁধা। তবে প্রতিপক্ষের চাইতে ওখানকার কন্ডিশন ও উইকেট ছিল বিরুদ্ধ ফলে কাজটা যতটা সহজ ভাবা হচ্ছে ততটা সহজ ছিলনা বলে জানাচ্ছেন আফিফ, ‘দেখতে যতটা সহজ ছিল ওখানে এতো সহজ ছিল না। ওখানে গিয়ে প্রথমে আমাদের আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয়েছে। ওখানে উইকেট অনেক কঠিন ছিল। ঐ উইকেটে রান করা সবার জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। সবমিলিয়ে আমরা ঠিকভাবে মানিয়ে নিতে পেরেছি অনুশীলনে এবং ম্যাচে। কুয়াশার ওরকম ব্যাপার ছিল না। ঠাণ্ডা ছিল।’

‘আমরা এরকম আসর আগে কখনো খেলিনি। প্রথমবার খেলেছি আমরা। তো আমরা অনেক উত্তেজিত ছিলাম। এরকম আসর জেতা আমাদের জন্য বড় অর্জন। তো প্রথম থেকেই ঐ চেষ্টা করেছি। আমরা যেন ভালো শেষ করে চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরে আসতে পারি। ‘

বিপিএলে রাজশাহী রয়্যালসে কোচ হিসেবে আফিফ পাচ্ছেন আন্দ্রে রাসেলকে। তার মত বিশ্বমানের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটারের সাথে ড্রেসিং রুম শেয়ার করতে পারা রোমাঞ্চিত করছে আফিফকে, ‘এরকম একটা বিশ্বমানের ক্রিকেটারকে অধিনায়ক হিসেবে পেয়েছি, এতে আমরা ভাগ্যবান। ওর মতো ক্রিকেটারের সঙ্গে ড্রেসিং রুম শেয়ার করাটাও বড় ব্যাপার। অনেক কিছু শিখতে পারব। এগুলো আমরা শেখার চেষ্টা করব আর পুরো আসরে যেন ভালো খেলা যায় সেই চেষ্টা করব।’

বিপিএলে নিজের লক্ষ্য সম্পর্কে জানাতে গিয়ে তরুণ এই অলরাউন্ডার যোগ করেন, ‘বিপিএলে চাইব আমার সেরা প্রচেষ্টা দেয়ার। যেন ভালোটা দিতে পারি সবসময়। শেষ কয়েকটি বিপিএলে যে ভুলগুলো করেছি এবার যেন সেই ভুল না করে তার থেকে ভালো করতে পারি, সেই চেষ্টা করছি।’