ইমরুল-ওয়ালটনের ব্যাটে চড়ে চট্টগ্রামের সহজ জয়

9
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস করসপন্ডেন্টঃ
বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে মোহাম্মদ মিঠুনের ক্যারিয়ার সেরা টি-টোয়েন্টি ইনিংসে ভর করে সিলেটের দেওয়া ১৬৩ রানের লক্ষ্য তাড়ায় যেমন শুরুর দরকার ছিল ঠিক তার উল্টোটাই করেছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। তবে ইমরুল কায়েস-চ্যাডউইক ওয়ালটনের দুর্দান্ত জুটিতে ৫ উইকেটের জয় দিয়েই টুর্নামেন্ট শুরু করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

ইনিংসের চতুর্থ ও নিজের প্রথম ওভারে দুই উইকেট তুলে নিয়ে বিপদে ফেলে দেন নাজমুল ইসলাম অপু। মাত্র এক রান খরচায় পরপর দুই বলে ফেরান ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী ও নাসির হোসেনকে। জীবন পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি জুনায়েদ, ফিরেছেন ৭ বলে মাত্র ৪ রান করে। নাসির হোসেন তো খুলতে পারেননি রানের খাতাই, ফিরেছেন গোল্ডেন ডাক মেরে।

অন্যপ্রান্তে একাই লড়াইয়ের ইঙ্গিত দেন শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান অভিষেক ফার্নান্দো। তবে পাওয়ার প্লের শেষ বলে ক্রিশমার সান্টোকির বলে ফেরেন তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে। আউট হওয়ার আগে ২৬ বলে সমান তিন চার-ছক্কায় করেন ৩৩ রান। এরপর রায়ান বার্লও ফেরেন মাত্র তিন রান করে, ৬৪ রান তুলতেই চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স হারায় ৪ উইকেট। সেখান থেকে চ্যাডউইক ওয়ালটনকে নিয়ে দুর্দান্ত এক ইনিংসে চট্টগ্রামকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন ইমরুল কায়েস।

৫৩ বলে দুজনে মিলে জুটিতে যোগ করেন ৮৬ রান, ২৯ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো ইমরুল কায়েস শেষ পর্যন্ত থামেন ৩৮ বলে ২ চার ও ৫ ছক্কায় ৬১ রানে। অন্যদিকে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেওয়া ওয়ালটন অপরাজিত থাকেন ৩০ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় ৪৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে। চট্টগ্রাম লক্ষ্যে পৌঁছায় ৬ বল ও ৫ উইকেট হাতে রেখেই। সিলেটের হয়ে দুটি উইকেট নেন নাজমুল ইসলাম অপু, একটি করে শিকার সান্টোকি, এবাদত ও নাভিন উল হক।

এর আগে সিলেটকে লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন মোহাম্মদ মিঠুন। তার ক্যারিয়ার সেরা ৮৪* রানের অপরাজিত ইনিংসে থান্ডার পায় ১৬২ রানের পুঁজি। ৬১ রানে তিন উইকেট হারানোর পর মোসাদ্দেক হোসেনকে নিয়ে ৯৬ রানের জুটি গড়েন মিঠুন। ৩৫ বলে ২৯ রান করে মোসাদ্দেক কেবল সঙ্গই দিয়েছে মিঠুনকে, ৩০ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো মিঠুন শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৪৭ বলে ৪ চার ৫ ছক্কায় ৮৪ রানে। এছাড়া জনসন চার্লসের ব্যাট থেকে আসে ৩৫ রান। চট্টগ্রামের হয়ে সর্বোচ্চ দুটি উইকেট নেন রুবেল হোসেন, একটি করে উইকেট শিকার রায়াদ এমরিট ও নাসুম আহমেদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

সিলেট থান্ডার ১৬২/৪ (২০), রনি ৫, চার্লস ৩৫, মিঠুন ৮৪*, মেন্ডিস ৪, মোসাদ্দেক ২৯, মিলন ১*; নাসুম ৪-০-৩৪-১, রুবেল ৪-০-২৭-২, এমরিট ৪-০-৩৮-১।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ১৬৩/৫ (১৯), ফার্নান্দো ৩৩, জুনায়েদ ৪, নাসির ০, ইমরুল ৬১, বার্ল ৩, ওয়ালটন ৪৯*, নুরুল ৫*; সান্টোকি ৪-০-৩৪-১, নাজমুল ৩-০-২৩-২, এবাদত ৪-০-৩৩-১, মোসাদ্দেক ১-০-৯-১।

ফলাফলঃ চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ৬ বল ও ৫ উইকেট হাতে রেখে জয়ী।

ম্যাচসেরাঃ ইমরুল কায়েস (চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স)।