বিপিএলের বাজে উইকেট নিয়ে ব্যাখ্যা দিলেন প্রধান নির্বাচক

9
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস করসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
বিপিএলের প্রতি আসরেই উইকেট নিয়ে সমালোচনা নিত্যনৈমত্তিক ব্যাপার। আরও একটি বিপিএল যখন দুয়ারে কড়া নাড়ছে উইকেট নিয়ে প্রশ্নটা অবধারিতই, এবারও কি তবে অধিকাংশ ম্যাচই লো স্কোরিং হতে যাচ্ছে এমন প্রশ্ন গণমাধ্যমকর্মীদের মনে। জাতীয় দলের দলের প্রধান নির্বাচক ও কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের পরামর্শক মিনহাজুল আবেদিন অবশ্য দিয়েছেন ব্যাখ্যা।

প্রধান নির্বাচকের মতে একই মাঠে টানা খেলা হয় বলে স্পোর্টিং উইকেট পাওয়াটা দুষ্কর হয়ে যায়। এদিকে শীতের মৌসুমে খেলা বলে দিনে-রাতের খেলায় থাকে বড় ফারাক, আর এমন চ্যালেঞ্জে খেলে অভ্যস্ত হওয়াটা স্থানীয় ক্রিকেটারদের জন্যই ইতিবাচক বলে মনে করছেন মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

উইকেট প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নান্নু জানান, ‘আমরাতো এক নাগাড়ে অনেকগুলো ম্যাচ একটা মাঠের মধ্যে খেলি। তো সে হিসেবে হোম এন্ড অ্যাওয়ে সিস্টেম আমাদের খুবই কম। আমরাতো অবশ্যই চাই স্পোর্টিং উইকেট, একেক জায়গায় একেক উইকেট হোক। যাতে সবধরনের উইকেটে খেলতে অভ্যস্ত হয় ক্রিকেটাররা।’

‘ওয়েদার এখন খুব ঠান্ডা থাকবে রাতের ম্যাচে বেশ কুয়াশা থাকবে। সে হিসেবে পরিস্থিতি অন্যরকম, উইকেট যতই ভালো থাকুক বল কুয়াশার জন্য অন্যরকম হয়ে যায়। বোলারদের জন্য বেশ কষ্টকর হয়ে পড়ে সে হিসাবে রাতের খেলা দিনের খেলা দুই রকমের ম্যাচ হবে। প্লেয়ারদের জন্য যথেষ্ট ভিন্ন হবে, দুই ম্যাচে দুই ধারায় মানিয়ে নেওয়ার জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।’

ভারত সফরের পর জাতীয় দলের কোচিং স্টাফরা আছেন ছুটিতে, আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে বিপিএলকে পাখির চোখ করেছেন নির্বাচকরা। এমন পরিস্থিতিতে কোচিং স্টাফদেরও পাওয়া যাবে কিনা জানতে চাইলে নান্নু বলেন, ‘কিছু জায়গায় গ্যাপ দিতে হবে কারণ তাদের ক্রিসমাসের ছুটি আছে। এরপর ম্যানেজমেন্টের সবাই দেখবে, ওই সময় একটু গ্যাপ পড়তে পারে। তারপরও কোচদের সাথে আমাদের যে কথা হয়েছে উনারা পুরো টুর্নামেন্টই কাভার করবে।’

বিপিএলের ৪ আসরে অংশ নিয়ে কুমিল্লা শিরোপা জিতেছে দুটি, বর্তমান চ্যাম্পিয়নও তারা। বঙ্গবন্ধুর নামে বিশেষ বিপিএল বলে এবারও শিরোপা নিজেদের ঘরে তুলতে মরিয়া কিনা এমন প্রশ্নে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক জানালেন দলের কম্বিনেশন দেখে তিনি আশাবাদী, ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল বঙ্গবন্ধুর নামেই হচ্ছে এটা আমাদের জন্য বিরাট ব্যাপার। এখন এই টুর্নামেন্টের সার্বিক সাফল্য আমরা সবদিক দিয়ে চাই।’

‘এবং কুমিল্লা যেহেতু বিসিবির ব্যবস্থাপনায় চলছে সেহেতু এখানে কিন্তু অনেক খেলোয়াড় নেওয়া হয়েছে যাদেরকে আমরা আগামীতে জাতীয় দলে দেখতে চাই। আর কম্বিনেশনটাও যথেষ্ট ভালো করেছে ব্যাটিং বোলিং নিয়ে, আশা করি কুমিল্লা ভালো করবে।’