আশাশুনি আকস্মিক ঝড়ে লন্ডভন্ড , বজ্রপাতে স্কুলছাত্রী নিহত

21

আকস্মিক কালবৈশাখী ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঝড়বৃষ্টি শুরু হয়। এতে শতাধিক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াসহ উপড়ে গেছে ৩০ থেকে ৩৫টি বিদ্যুতের খুটি। বজ্রপাতে নিহত হয়েছে এক স্কুলছাত্রী।

নিহত স্কুলছাত্রী আসমা খাতুন উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের শ্বেতপুর গ্রামের আমিনুর রহমানের মেয়ে ও বুধহাটা এনএস মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।

আশাশুনির বুধহাটা এলাকার বাসিন্দা নুর আলম জানান, বিকেলে আকস্মিক ঝড়বৃষ্টি শুরু হয়। হঠাৎ ঝড়ে শতাধিক মাটির তৈরি ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাতক্ষীরা-আশাশুনি সড়কের বুধহাটা চাপড়া এলাকায় সড়কের পাশে থাকা বিদ্যুতের খুটিগুলো সব উপড়ে পড়েছে। গোটা এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

asa

হঠাৎ ঝড়ে বুধহাটা এলাকার ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে জানতে বুধহাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আ.ব.ম. মোসাদ্দেকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জাগো নিউজকে বলেন, হঠাৎ ঝড়ে উপজেলার বিদ্যুৎ বিভাগে অনেক বড় ক্ষতি হয়েছে। সড়কের পাশেসহ বিভিন্ন স্থানে ৩০-৩৫টি বিদ্যুতের খুটি উপড়ে পড়েছে। বেশকিছু ঘরবাড়ির ক্ষতি হয়েছে। এক স্কুলছাত্রী বজ্রপাতে নিহত হয়েছে বলে শুনেছি।

তিনি বলেন, ঝড় শেষ হওয়ার পর বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরাও সড়ক থেকে বিদ্যুতের খুটি সরিয়ে যানচলাচল স্বাভাবিক করতে কাজ করছে।